প্রকাশ্য দিবালোকে সন্তানের সামনে বাবাকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা

415

স্টাফ রিপোর্টারঃ নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে দাবীকৃত চাঁদা না পেয়ে শিশু সন্তানদের সামনে প্রকাশ্য দিবালোকে রাসেল ভুইয়া নামের এক ব্যবসায়ীকে রামদা ও চাপাতি দিয়ে এলোপাতারি কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা করেছে পুলিশের তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসীরা। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার মোগরাপাড়া চৌরাস্তা এলাকার একটি অভিজাত রেস্টুরেন্টে ওই ব্যবসায়ী সন্তানদের নিয়ে খাবার খেতে গেলে এ ঘটনাটি ঘটে। এ ঘটনায় রেস্টুরেন্টের ব্যবস্থাপককে পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করলেও সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার করতে পারেনি।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার পিরোজপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান দুধঘাটা গ্রামের সিরাজুল ইসলাম ভুইয়া’র ছেলে ড্রেজার ব্যবসায়ী রাসেল ভুইয়া (৩২) তার ৫ বছরের শিশু কন্যা রাইসা ও ৪ বছরের ভাতিজা শিশু সানজিদকে সাথে নিয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরের খাবার খেতে মোগরাপাড়া চৌরাস্তার আইয়ুব প্লাজার তৃতীয় তলায় অবস্থিত এন এফ সি নামক একটি অভিজাত রেস্টেুরেন্টে যায়। তারা খাবার খাওয়া শুরু করার আগেই হঠাৎ করে দেশীয় অস্ত্র রামদা ও ধারালো চাপাতি নিয়ে ব্যবসায়ী রাসেলের উপর হামলা চালায় মাদক, ডাকাতি, হত্যা, অপহরণ, চাঁদাবাজিসহ একাধিক মামলার আসামী ও সোনারগাঁ থানা পুলিশের তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী বিশাল, রাসেল ও আরাফাতসহ আরও কয়েকজন। সন্ত্রাসীরা রাসেলকে রামদা দিয়ে কোপাতে গেলে তার সন্তানদের উপর দায়ের কোপ পরার আশঙ্কায় সে তার সন্তানদের নিরাপত্তা দিতে বুকে জড়িয়ে ধরে। এসময় সন্ত্রাসীরা ব্যবসায়ী রাসেলকে রামদা ও চাপাতি দিয়ে এলোপাতারি কুপিয়ে শরীরের বিভিন্ন স্থানে মারাত্মক রক্তাক্ত জখম করে। তখন রাসেল মাটিতে লুটিয়ে পড়লে সে মারা গেছে ভেবে সন্ত্রাসীরা অস্ত্র হাতে নিয়েই বীরদর্পে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। এদিকে রেস্টুরেন্টের ভেতর প্রকাশ্যে সন্ত্রাসী হামলার সময় ভয়ে ও সন্ত্রাসীদের হুমকিতে রেস্টুরেন্টে থাকা সাধারণ মানুষ ও হোটেলের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা আত্মরক্ষার্থে পালিয়ে যায়। সংবাদ পেয়ে আহতের স্বজনেরা তাকে উদ্ধার করে দ্রুত প্রথমে স্থানীয় একটি বেসরকারি ও পরে মূমুর্ষাবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যায়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক প্রত্যক্ষদর্শীর একাধিক সূত্র আরও জানায়, হত্যা, মাদক, ডাকাতি, অপহরণ, চাঁদাবাজিসহ একাধিক মামলার আসামী পুলিশের ১ নং তালিকাভুক্ত দুর্ধর্ষ সন্ত্রাসী হৃদয় ওরফে গিট্টু হৃদয় তার প্রধান সহযোগী রাসেল, ইমরান, বাবু, রুপচাঁন ও কমল হকসহ আরো কয়েকজন রেস্টুন্টের নীচে অস্ত্র নিয়ে মহড়া ও হামলাকারীদের নিরাপত্তা দেয়। এদিকে সন্ত্রাসী হামলার খবরে থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ওই রেস্টুরেন্টের ব্যবস্থাপক আরিফ হোসেনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে পরবর্তীতে ছেড়ে দেয়।

এদিকে আহত রাসেলের পিতা সিরাজুল ইসলাম ভুইয়া জানান, সন্ত্রাসী রাসেল, ইমরান, বাবু, রুপচাঁন ও কমল হকসহ আরও কয়েকজন সন্ত্রাসী আমার ব্যবসায়ী ছেলের কাছে ৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবী করেছিল। সে চাঁদা দিতে অপারগতা প্রকাশ করায় তাকে প্রকাশ্য দিবালোকে রেস্টুরেন্টের ভিতর কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা করেছে সন্ত্রাসীরা।

এ বিষয়ে সোনারগাঁ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মনিরুজ্জামান জানান, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়ে আলামত সংগ্রহ করা হয়েছে। হামলার ঘটনায় (এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত) কেউ কোন অভিযোগ করেনি। তবে তথ্য সংগ্রহ করে আসামীদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।