নারায়ণগঞ্জের সাইনবোর্ড হতে অজ্ঞাত মলম পার্টির ৩ সদস্যকে গ্রেফতার

353

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ নারায়ণগঞ্জের সাইনবোর্ড হতে অজ্ঞাত মলম পার্টির ৩ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে র্যা র-১১। র্যা ব প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে সমাজের বিভিন্ন অপরাধের উৎস উদঘাটন, অপরাধীদের গ্রেফতার, আইন শৃংখলার সামগ্রিক উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। বিভিন্ন অপরাধীদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনার জন্য র্যা ব ফোর্সেস নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করে থাকে। সাম্প্রতিক সময়ে র্যা ব-১১ এর দায়িত্বপূর্ন এলাকায় অজ্ঞাত মলম পার্টির চক্র অনেকাংশে বৃদ্ধি পেয়েছে। উক্ত অপরাধ দমনের লক্ষ্যে র্যা ব-১১ অজ্ঞাত মলম পার্টির বিরুদ্ধে নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করে আসছে।

এরই ধারাবাহিকতায় গত ১৭ জুলাই ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দে রাতে র্যা ব-১১, সিপিএসসি এর বিশেষ অভিযানে নারায়ণগঞ্জ জেলার সিদ্ধিরগঞ্জ থানাধীন সাইনবোর্ড চৌরঙ্গী মাকের্ট এলাকা হতে অজ্ঞাত মলম পার্টির ০৩ জন সক্রিয় সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফাতারকৃতরা হলো ১। ফেরুন আক্তার মনি (৩৬), স্বামী-নাদিম ভূইয়া ২। রুমা আক্তার সালমা (৩১), পিতা-মৃত আব্দুল হক মোল্লা এবং ৩। মোঃ রুমান ভূইয়া (১৯), পিতা-নাদিম ভূইয়া। এ সময় তাদের দেহ তল্লাশী করে চেতনাশক ট্যাবলেট ও চেতনাশক বাম মলব জব্দ করা হয়। গ্রেফতারকৃতরা দীর্ঘদিন যাবৎ চেতনাশক ট্যাবলেট বিভিন্ন প্রকার খাবারের সাথে মিশিয়ে মহাসড়কে চলাচলরত সাধারণ ও ঘরমুখী যাত্রীদের সেবন করিয়ে তাদের অজ্ঞান করত তাদের সর্বস্ত কেরে নেয়।

গ্রেফতারকৃতদেরকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ ও অনুসন্ধানে জানা যায়, ফেরুন আক্তার মনি ও তার ছেলে মোঃ রুমান ভূইয়া এর বাড়ী ঢাকা জেলার সাভার থানাধীন ফেরিঙ্গীকান্দা গ্রামে এবং রুমা আক্তার সালমা এর বাড়ী পটুয়াখালী জেলার গলাচিপা থানাধীন কোর্টখালী গ্রামে। তারা পরস্পর যোগসাজশে দীর্ঘদিন যাবৎ মহাসড়কে চলাচলরত বাস, অটোরিক্সা, (সিএনজি) ইত্যাদি যাত্রীবাহী পরিবহনে যাত্রী সেজে চেতনানাশক ট্যাবলেট জুস, পানি, চা, ডাবের পানি ও শরবতসহ বিভিন্ন খাবারে সাথে মিশিয়ে সাধারন যাত্রীদের সেবন করিয়ে ও সু-কৌশলে উক্ত চেতনাশক প্রয়োগের মাধ্যমে যাত্রীদের অজ্ঞান করতঃ সর্বস্ত কেরে নেয়। সুনিদিষ্ট অভিযোগ ও গোয়েন্দা নজরদারির প্রেক্ষিতে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে নারায়ণগঞ্জ জেলার সিদ্ধিরগঞ্জ থানাধীন সাইনবোর্ড চৌরঙ্গী মাকের্ট এলাকা হতে অজ্ঞাত মলম পার্টির এই তিন সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়। অজ্ঞাত মলম পার্টির বিরুদ্ধে র্যা বের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

গ্রেফতারকৃত আসামীদের বিরুদ্ধে নারায়ণগঞ্জ জেলার সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন।