গুজব ছড়ানো ব্যক্তিদের আইনের আওতায় আনা হবে-পুলিশ সুপার

357

সময়ের চিন্তা ডট কমঃ নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপার হিসেবে যোগদানের পর থেকে আমি মাদকের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছি। আমরা মাদকের প্রতি জিরো টলারেন্স। আপনারা জানেন হকারের বিরুদ্ধে আমরা না। তবে অবৈধ ভাবে কেউ ফুটপাত দখল করতে পারবেনা। আমরা অবৈধ দখলদারদের বিরুদ্ধে। অবৈধ দখলকারীদের উচ্ছেদ করা হয়েছে এবং ভবিষ্যতেও হবে।
বর্তমান সময়ে ছেলে-মেয়ে ধরা সন্দেহে কিংবা গলা কাটা সন্দেহে গণপিটুনি দিয়ে নিরীহ লোকজনদেরকে মারা হচ্ছে যা অনাকাঙ্খিত। সন্দেহ বশত কাউকে পিটিয়ে মারা যাবে না। তাকে না মেরে আটক করুন। নিকটস্থ থানা বা পুলিশ বা আইন প্রয়োগ সংস্থার হাতে তুলে দিন। পদ্মা সেতু নির্মানে মাথা লাগবে একটি কুচক্রী মহল এমন গুজব ছড়ানো পর দেশের বিভিন্ন স্থানে কয়েকজন মর্মান্তিক ভাবে প্রাণ হারিয়েছে। গুজবে কেউ কান দিবেন না। সিদ্ধিরগঞ্জে ছেলে ধরা সন্দেহে গনপিটুণীতে একজন পুরুষ সিরাজ(৩০) নিহত ও এক জন মহিলা শারমিন(২৫) আহত হয়। এই সংক্রান্তে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় দুইটি মমলা হয়েছে। ভিকটিম সিরাজের বিষয়ে এসআই শাখাওয়াত বাদী হয়ে মামলা করেন। মামলা নং-৫৪, তারিখ-২০/০৭/২০১৯ খ্রিঃ, ধারা-৩০২/৩৪ দঃবিঃ অপরটি আহত শারমিন এর মা তাসলিমা বেগম বাদী হয়ে মামলা করেন। মামলা নং-৫৫, তারিভ-২১/০৭/২০১৯ খ্রিঃ। উক্ত দুইটি মামলায় ১৪ জনকে ইতোমধ্যে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। অভিযান অব্যাহত আছে।
ছেলে ধরা সন্দেহে গনপিটুনি একটি ফৌজদারী অপরাধ। আইন নিজের হতে তুলে নিবেন না। গনপিটুনীর ঘটনায় যারা জড়িত তদন্ত করে তাদেরকে আইনের আওতায় আনা হবে। দেশে অস্থিতিশীল পরিবেশ তৈরী করা রাষ্ট্রবিরোধী কাজের শামিল। সুতরাং কেউ অপরাধ করে পার পাবেনা। নারায়ণগঞ্জ পুলিশের পক্ষ থেকে গুজবে কান না দেওয়ার জন্য নারায়ণগঞ্জবাসীকে অনুরোধ করা হলো। আইন নিজের হাতে তুলে নিবেন না। দেশকে অস্থিতিশীল করার জন্য একটি চক্র এ ধরণের গুজব ছড়াচ্ছে। নারায়ণগঞ্জ এর সকল থানার ওসি’দের কে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে মাইকিং করার জন্য(ইতো মধ্যে মাইকিং এর কাযক্রম চলছে)। এলাকার জন প্রতিনিধি, চেয়ারম্যান, কমিশনার, কাউন্সিলর মেম্বার সহ স্কুল কলেজ, মাদ্রাসার শিক্ষকদের সহিত এ বিষয়ে আলোচনা করা নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে।
আপনারা জানেন নারায়ণগঞ্জ শহরকে শান্তিময় ও সুন্দর শহর গড়ে তোলার লক্ষে নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ কাজ করছে। ইতো মধ্যে মীর জুমলা সড়ক সাধারণ মানুষের জন্য রাস্তা খুলে দেওয়া হয়েছে। আগে অবৈধ দখলদাররা এই রাস্তা দখল করে রাখত। আমরা চাষাড়ার আশেপাশে ও বঙ্গবন্ধু রোডে হকার মুক্ত ফুটপাত উপহার দিয়েছি। সাধারণ মানুষ তাদের ছেলে-মেয়ে নিয়ে চলাফেরা করতে পারছে। আমরা ভূমিদস্যু, সন্ত্রাস, জঙ্গীবাদ, মাদক নিয়ে কাজ করছি এবং এই ধারা অব্যাহত থাকবে। উল্লেখ্য যে, আগামী ২৫/০৭/২০১৯ খ্রি তারিখ রপগঞ্জ থানায় কাঞ্চন পৌরসভা নির্বাচন। উক্ত নির্বাচন পূর্বের নির্বাচনের ন্যায় অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হবে। নির্বাচনে কোন প্রকার বিশৃঙ্খলা করতে দেওয়া হবে না। নির্বাচনে পর্যাপ্ত পুলিশ মোতায়েন থাকবে। সকলকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।