রোগীর পেটে গজ রেখে সেলাই করায় অবন্তীকা নামের প্রসূতির মৃত্যুর অভিযোগ

458

মোঃনুর নবী জনিঃনারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে সোনারগাঁ জেনারেল হাসপাতালের প্রসূতি বিভাগের চিকিৎসক ডাক্তার নুরজাহানের অপচিকিৎসায় অবন্তিকা(২০)নামের এক প্রসূতির মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। মৃত অবন্তিকা সোনারগাঁ উপজেলার মোগড়াপাড়া ইউনিয়নের বড় সাদিপুর এলাকার পিন্টু মিয়ার স্ত্রী এবং বন্দর উপজেলার দক্ষিণ কল্যান্দী এলাকার সোহেল মিয়ার মেয়ে।
নিহত অবন্তিকার স্বামী পিন্টু মিয়া বলেন,আমার স্ত্রী অবন্তিকা গর্ভবতী হওয়ার পর থেকেই মোগড়াপাড়া মাঝিপাড়া এলাকার পরিবার পরিকল্পনা কর্মী শাহানা বেগম দীর্ঘদিন যাবত অবন্তিকাকে তার নিজ বাসায় বিভিন্ন সময়ে চিকিৎসা করতেন।সর্বশেষ শাহানার পরামর্শে গত ০৬ই সেপ্টেম্বর শুক্রবার বিকেল ০৪টায় আমার স্ত্রীকে সোনারগাঁ শপিং কমপ্লেক্সের ৩য় তলায় অবস্থিত সোনারগাঁও জেনারেল হাসপাতালের প্রসূতি বিভাগের চিকিৎসক ডাক্তার নুরজাহানের কাছে নিয়ে যান।
পরবর্তীতে শুক্রবার সন্ধা পৌনে ৬টায় ডাক্তার নুরজাহান অবান্তিকাকে ১২হাজার টাকার বিনিময়ে সিজার করেন।এসময় একটি কন্যা সন্তান হওয়ার পর তার পেটে গজ(ভ্যান্ডিসের কাপড়) রেখে সেলাই করে দেন।তার কিছুক্ষণ পর থেকেই রোগী অবন্তিকার পেট ফুলে ব্লিডিং হতে থাকে।তার অবস্থার অবনতির কারণে ডাক্তার নুরজাহান তাকে নারায়ণগঞ্জ কেয়ার হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে পুনরায় অপারেশন করে পেট থেকে গজ বের করেন এবং এসময় তার ব্লিডিং বন্ধ না হওয়ায় রোগীর জ্বরায়ু কেটে ফেলে।
পরবর্তীতে রোগীর অবস্থা আরও খারাপ হওয়ায় ডাক্তার নুরজাহানের পরামর্শে আবারো আমার স্ত্রীকে ঢাকার আজগর আলী হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি করি।রোগীর অবস্থা আরও মুমূর্ষু হওয়ায় তাকে জাপান বাংলা হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে গতকাল সোমবার সকাল ০৮টায় তার মৃত্যু হয়।
এদিকে ডাক্তার নুরজাহানের ভূল চিকিৎসায় রোগীর মৃত্যুর ঘটনা এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে উত্তেজিত এলাকাবাসী সোনারগাঁও জেনারেল হাসপাতালে ভাংচুর চালায়।খবর পেয়ে সোনারগাঁ থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই মাসুদ রানার নেতৃত্বে এসআই আপন কুমার মজুমদার, এসআই রাজু মন্ডল ও এএসআই মনিরুল ইসলাম সঙ্গিয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে উত্তেজিত জনতাকে সঠিক বিচার পাবার কথা বলে শান্তনা দিলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে।
এদিকে ঘটনার কিছুক্ষণ পরেই সোনারগাঁও জেনারেল হাসপাতালের কর্তৃপক্ষ ভুক্তভোগী পরিবার এবং এলাকাবাসী কয়েকজনকে আসামী করে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।অন্যদিকে ডাক্তার নুরজাহানের ভূল চিকিৎসায় মৃত অবন্তিকার স্বামী পিন্টু মিয়া বাদী হয়ে সোনারগাঁ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।
এ ব্যাপারে ঘটনাস্থল পরিদর্শনে আসা সোনারগাঁ থানার এসআই মাসুদ রানা জানান,সোনারগাঁও জেনারেল হাসপাতালে ভাংচুর হচ্ছে এমন খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে জানতে পারলাম যে এই হাসপাতালের চিকিৎসক নুরজাহান বেগমের অপচিকিৎসায় অবন্তিকা নামের এক প্রসূতির মৃত্যু হয়েছে।এজন্য উত্তেজিত এলাকাবাসী হাসপাতালে ভাংচুর চালায়।এ বিষয়ে উভয় পক্ষের দুটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।তদন্ত শেষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।