রিক্সা থেকে নামিয়ে ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা

307

সোনারগাঁ প্রতিনিধিঃ নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে বোনের সামনে রিক্সা থেকে নামিয়ে ডালিম (২৬) নামের এক ড্রেজার ব্যবসায়ীকে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে ও রড দিয়ে পিটিয়ে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে। পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ৫ অক্টোবর শনিবার সন্ধ্যায় উদ্ভবগঞ্জ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আহত ডালিমকে সোনারগাঁ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় ওই যুবকের বাবা আবুল হোসেন বাদী হয়ে সোনারগাঁ থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। ঘটনার পর অভিযুক্ত সন্ত্রাসী আমানউল্লাহর মোবাইলের দোকান তালা ঝুলিয়ে দেয় বিক্ষুদ্ধ এলাকাবাসী। সোনারগাঁ থানায় দায়ের করা অভিযোগ থেকে জানা যায়, মেঘনা উপজেলার চালিভাঙ্গা গ্রামের খেলু মিয়ার ছেলে আমানউল্লাহ ও তার কয়েকজন বন্ধু এক বছর আগে আবুল হোসেনের ছেলে ডালিমের বাড়ির পাশে মদ পান করে মাতলামি করছিল। ওই সময় ডালিম তাদের বাঁধা দেয়াকে কেন্দ্র করে তাদের মধ্যে ঝগড়া বিবাদ হয়। এ ঘটনায় ক্ষুদ্ধ হয়ে বিভিন্ন সময়ে তাদের মধ্যে তর্কবিতর্ক হয়েছে। শনিবার সন্ধ্যায় এক রোগীর স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ডালিম মোগরাপাড়া চৌরাস্তা যাওয়ার পথে উদ্ধবগঞ্জ বাজার এলাকায় ডালিমের বোনের সামনে রিক্সা থেকে নামিয়ে সন্ত্রাসী আমানউল্লাহ, আক্তার ওরফে জাবেদ ও সালাতউল্লাহ একত্রিত হয়ে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে ও রড দিয়ে পিটিয়ে হত্যার চেষ্টা করে। পরে বাজারের লোকজন এগিয়ে এলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। ঘটনার পর বিক্ষুব্ধ লোকজন অভিযুক্ত সন্ত্রাসী আমানউল্লাহর দোকানে তালা ঝুলিয়ে দেয়। প্রত্যক্ষদর্শী আহত ডালিমের চাচাতো বোন মনিকা বেগম জানান, অসুস্থ্য স্বামী মিলন মিয়াকে সোনারগাঁ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পর ডাক্তার স্বাস্থ্য পরীক্ষা দেন। স্বাস্থ্য পরীক্ষা করানোর জন্য মোগরাপাড়া যাওয়ার পথে উদ্ভবগঞ্জ বাজারে আমানউল্লাহ ও আক্তার হোসেন ওরফে জাবেদ রিক্সা থামায়। এসময় আমি তাদের কাছে মাফ চেয়ে রিক্সা ছেড়ে দেওয়ার জন্য অনুরোধ করি। কিন্তু কোন কথা না শুনে আমার চাচাতো ভাই ডালিমকে সাদা রঙের চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে ও রড দিয়ে পিটিয়ে আহত করে পালিয়ে যায়।তিনি বলেন তারা আমাকেও লোহার রড দিয়ে আঘাত করে। সোনারগাঁ থানার ওসি মনিরুজ্জামান বলেন, ড্রেজার ব্যবসায়ীকে পিটিয়ে আহত করার ঘটনায় অভিযোগ গ্রহন করা হয়েছে। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।