আওয়ামী লীগ মানুষের সেবা করতে পারে-প্রধানমন্ত্রী

285

স্টাফ রিপোর্টারঃপ্রধানমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা বলেছেন, আওয়ামী লীগ মানুষের সেবা করতে পারে; ক্ষমতায় এসে তা প্রমাণ করেছে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ মেনে আওয়ামী লীগকে শক্তিশালী করে গড়ে তুলতে হবে।

আওয়ামী লীগের সম্মেলনের কাউন্সিল অধিবেশনের সূচনা বক্তব্যে এসব কথা বলেন শেখ হাসিনা।

সূচনা বক্তব্যে মানুষের আস্থা বিশ্বাস যাতে অর্জন করা যায় সে লক্ষ্যে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের কাজ করারও নির্দেশ দেন আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা।

আওয়ামী লীগের ২১তম জাতীয় সম্মেলনের দ্বিতীয় দিন শনিবার সকাল সাড়ে ১০টা রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে কাউন্সিল অধিবেশন শুরু হয়। দলের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে সারাদেশ থেকে দলের সাড়ে সাত হাজার কাউন্সিলরের উপস্থিতিতে শুরু হয় এ অধিবেশন।

সূচনা বক্তব্যে শেখ হাসিনা বাঙালি মুক্তির প্রতিটি আন্দোলন-সংগ্রামে আওয়ামী লীগের ভূমিকার কথা তুলে ধরে বলেন, এ দলের নেতৃত্বে বাংলাদেশ অনেক উন্নতি করেছে, এগিয়ে নিতে হবে অনেক দূর। তাই সংগঠনকে শক্তিশালী করার নির্দেশ দেন তিনি।

তিনি বলেন, জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণই তার রাজনীতি। দলকে শক্তিশালী করে গড়ে তোলার পাশাপাশি মানুষের আস্থা ও বিশ্বাস অর্জনে কাজ করতে হবে।

রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন প্রাঙ্গনে নির্মিত প্যান্ডেলে কাউন্সিল অধিবেশন অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা বলেন, দশ বছরে বাংলাদেশে অনেক এগিয়েছে।আমাদের আরও অনেক দূর যেতে হবে। সেক্ষেত্রে আমি বলব, সংগঠনকে আরও শক্তিশালী করতে হবে, মানুষের আস্থা বিশ্বাস অর্জন করতে হবে।

তিনি বলেন, আমাদের সেভাবে কাজ করতে হবে, মানুষ যেন স্বতঃস্ফূর্তভাবে আমাদের ভোট দিয়ে বিজয়ী করে। আমরা যারা জনগণের সেবা করতে পারি। নেতা-কর্মীদের শেখ হাসিনা আরও বলেন, কি পেলাম না পেলাম সে চিন্তা না করে মানুষের কল্যাণে কাজ করতে হবে।

সংগঠনকে শক্তিশালী করার পাশাপাশি সবাইকে জাতির পিতার আদর্শ মেনে চলার আহ্বান জানান ১৯৮১ সাল থেকে টানা আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্বপালনকারী শেখ হাসিনা

আওয়ামী লীগ সভাপতি ও টানা তিন বার মিলিয়ে চার বারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, স্বভাবতই ক্ষমতায় থাকলে জনপ্রিয়তা ধরে রাখা যায় না কিন্তু আমরা সেটা করতে পেরেছি। আমরা মানুষের আস্থা বিশ্বাস অর্জন করেছি, তা ধরে রাখতে হবে।

আওয়ামী লীগ সরকারের উন্নয়ন ও জনকল্যানমূলক কার্যক্রম এবং সামগ্রিক অগ্রগতির কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সরকার জনগণের সেবা করতে পারে, জনগণের কল্যাণ করতে পারে সেটা এদেশের মানুষ প্রথম উপলব্ধি করে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর। যখনই আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসে তখনই মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন হয়।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর অবদান ও আওয়ামী লীগকে গড়ে তোলার কথা তুলে ধরে বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এমনভাবে সংগঠনটি গড়ে তোলেন এবং এর মাধ্যমে সমগ্র জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করে দেশের স্বাধীনতা অর্জন করেন।

আওয়ামী লীগের ত্যাগের ইতিহাস তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশে যত অর্জন রয়েছে তা করতে গিয়ে সবচেয়ে বেশি শহীদ হয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতি পিতা সপরিবারে নিহত হওয়া এবং তার পরবর্তী বাংলাদেশের কথা তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেন, জাতির পিতাকে হত্যার পর সেখানে গণতন্ত্র ছিল না। দেশে হত্যা, ক্যু, ষড়যন্ত্রের রাজনীতি প্রতিষ্ঠা করা হয়। দুর্নীতি, অপশাসন, ছাত্র সমাজের অবক্ষয়ের মাধ্যমে দেশকে ধ্বংসের দিকে নিয়ে যাওয়া হয়।