উত্তরের আতিকুল, দক্ষিণ ফজলে নূর তাপস

512

সময়ের চিন্তা ডট কমঃ ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে বর্তমান মেয়র সাঈদ খোকনকে বাদ দিয়ে ঢাকা-১০ আসনের সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপসকে মনোনয়ন দিচ্ছে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ। উত্তরের বর্তমান মেয়র আতিকুল ইসলামেই আস্থা রাখছে ক্ষমতাসীন দল।

শনিবার (২৮ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনের প্রার্থী চুড়ান্ত করতে শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে গণভবনে বৈঠক বসে আওয়ামী লীগের স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ড। বৈঠকে দুই সিটির মেয়র প্রার্থী চূড়ান্ত করা হয় বলে দলীয় সূত্রে জানা গেছে।

তবে দলীয়ভাবে রোববার বেলা ১১টায় প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করবেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, বিচার বিশ্লেষণ ও পর্যালোচনা করছি। নেত্রী নিজের সোর্স থেকেও খোঁজ নিচ্ছেন, গোয়েন্দা সংস্থার রিপোর্ট নেওয়া হয়েছে। সব কিছু বিচার বিশ্লেষণ করতে আমাদের একটু সময় লাগছে। রোববার ধানমন্ডির দলের সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে মেয়র ও কাউন্সিলর পদে প্রার্থীদের নাম আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করা হবে।

শেখ ফজলে নূর তাপস আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা শেখ মণির ছোট ছেলে। ২০০৮ সাল থেকে তিনি ঢাকা-১০ (ধানমন্ডি) আসনের সংসদ সদস্য। বঙ্গবন্ধুর ভাগ্নে শেখ মণির হাতে গড়া সংগঠন যুবলীগের নতুন চেয়ারম্যান হয়েছেন তাপসের বড় ভাই শেখ ফজলে শামস পরশ।

আতিকুল ইসলাম ব্যবসায়ী নেতা হিসেবে পরিচিত ছিলেন। গত বছর ঢাকা উত্তরের মেয়র আনিসুল হক মারা যাওয়ার পর উপনির্বাচনে তাকে আওয়ামী লীগ মনোনয়ন দেয়। ২৮ ফেব্রুয়ারির উপনির্বাচনে তিনি মেয়র নির্বাচিত হন। আওয়ামী লীগ তাকে দ্বিতীয়বারের মতো নৌকা প্রতীক দিচ্ছে।

এর আগে দলটির ধানমন্ডির সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয় থেকে উত্তর ও দক্ষিণে ২০ জন মেয়র পদ প্রত্যাশী মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেন। তাদের মধ্যে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ৮ জন এবং উত্তর সিটিতে ১২ জন মেয়র পদপ্রার্থী ছিলেন। শুক্রবার সকাল ১০টা থেকে শুরু হয়ে শনিবার বিকেল ৫টায় মনোনয়ন ফরম বিতরণ ও জমাদানের কার্যক্রম শেষ হয়।

ঢাকা সিটি কর্পোরেশন উত্তরে মেয়র পদ প্রত্যাশীদের মধ্যে ছিলেন, বর্তমান মেয়র আতিকুল ইসলাম, বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শহীদুল্লাহ ওসমানী, ভাষাণটেক থানা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মেজর (অব) ইয়াদ আলী ফকির, শহীদ পরিবারের সন্তান জামান ভূইয়া, কুতুবউদ্দিন নান্নু, মোহাম্মদ ইদ্রিস আলী মোল্লা, আলাউদ্দীন মোহাম্মদ, জেরিন সুলতানা কান্তা, হেলেনা জাহাঙ্গীর, আদম তমিজি হক, খায়রুল মজিদ, মিসেস রেহেনা ফরহাদ আইভি।

দক্ষিণ সিটিতে মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন, বর্তমান মেয়র সাঈদ খোকন, ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস, হাজী মোহাম্মদ সেলিম, আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক নজিবুল্লাহ হিরু, বঙ্গবন্ধু একাডেমীর সভাপতি মো. নাজমুল হক, মুক্তিযোদ্ধা কেন্দ্রীয় কমান্ড কাউন্সিলের সাবেক মহাসচিব মুক্তিযোদ্ধা এম এ রশিদ, আশরাফ হোসেন সিদ্দিকী ও হাজী আবুল হাসনাত।

ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশনে আগামী ৩০ জানুয়ারি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। পুরো নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে ইভিএম পদ্ধতিতে। গত ২২ ডিসেম্বর প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নুরুল হুদা এই নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেন। ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মনোনয়ন জমা দেয়ার শেষ সময় ৩১ ডিসেম্বর। বাছাই ২ জানুয়ারি এবং মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ সময় ৯ জানুয়ারি নির্ধারণ করা হয়েছে।

এদিকে বিএনপি দুই সিটিতে প্রার্থী চূড়ান্ত করেছে। উত্তরে ধানের শীষ নিয়ে নির্বাচন করবেন তাবিথ আউয়াল, যিনি ২০১৫ সালে আনিসুল হকের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। আর দক্ষিণে মনোনয়ন দিয়েছে অবিভক্ত ঢাকারা সাবেক মেয়র প্রয়াত সাদেক হোসেন খোকার ছেলে ইশরাক হোসেনকে।