রাষ্ট্রপতি পুলিশ পদক পাচ্ছেন মনিরুল ইসলাম ও আলেপ উদ্দিন

420

সময়ের চিন্তাঃপ্রতিবছর পুলিশের সেরা কর্মকর্তা ও সদস্যদের বাংলাদেশ পুলিশ পদক (বিপিএম) এবং রাষ্ট্রপতি পুলিশ পদকে (পিপিএম) ভূষিত করেন প্রধানমন্ত্রী। সাহসিকতা ও বীরত্বপূর্ণ অবদান এবং সেবামূলক কাজের বিবেচনায় এসব পদক দেয়া হয়। এ বছর রাষ্ট্রপতি পুলিশ পদক পাচ্ছে নারায়ণগঞ্জ পুলিশ ও র‌্যাবের দুই কর্মকর্তা।

পদকপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা হলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (পুলিশ সুপার পদে পদোন্নতিপ্রাপ্ত) মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম, র‌্যাব-১১ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আলেপ উদ্দিন। বছর জুড়ে ভালো কাজ, দক্ষতা, কর্তব্যনিষ্ঠা, সততা ও শৃঙ্খলামূলক আচরন,গুরুত্বপূর্ণ মামলার রহস্য উদঘাটন, অপরাধ নিয়ন্ত্রণ, জঙ্গি দমননের জন্য রাষ্ট্রীয়ভাবে পুলিশ সদস্যদের পুরস্কৃত করা হয়।

সেবা, সাহসিকতা ও বীরত্বপূর্ণ ভূমিকার জন্য পুলিশের ১১৮ জন পুলিশ কর্মকর্তা ও সদস্য এবার বাংলাদেশ পুলিশ পদক (বিপিএম) ও রাষ্ট্রপতি পুলিশ পদক (পিপিএম) পদক পাচ্ছে। পুলিশ সদর দপ্তর থেকে নাম চূড়ান্ত করে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে নামের তালিকা পাঠানো হয়েছে। দুইএকদিনের মধ্যে পদক প্রাপ্তদের গেজেট প্রকাশ করা হবে।

এ তালিকায় নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (পুলিশ সুপার পদে পদোন্নতিপ্রাপ্ত) মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম, র‌্যাব-১১ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আলেপ উদ্দিনের নাম রয়েছে।

২০২০ সালের ৫ থেকে ১০ জানুয়ারি রাজধানীর রাজারবাগে পর্যন্ত অনুষ্ঠেয় পুলিশ সপ্তাহের অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পুলিশ কর্মকর্তা ও সদস্যদের হাতে রাষ্ট্রপতি পুলিশ পদক তুলে দেবেন।(বিপিএম) সাহসিকতা ও সেবা এবং (পিপিএম) সাহসিকতা ও সেবা- এই চারটি ক্যাটাগরিতে এই পুরস্কার দেওয়া হয়। ক্যাটাগরি অনুযায়ী, প্রেসিডেন্ট পুলিশ পদক (পিপিএম) সেবা পাচ্ছেন নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (পুলিশ সুপার পদে পদোন্নতিপ্রাপ্ত) মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম ও রাষ্ট্রপতি পুলিশ পদক (পিপিএম) সাহসিকতা পাচ্ছেন র‌্যাব-১১ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আলেপ উদ্দিন।

উল্লেখ্য, জঙ্গি দমনে অসীম সাহসিকতা ও বীরত্বপূর্ণ কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ ২০১৮ সালে আলেপ উদ্দিন প্রেসিডেন্ট পুলিশ পদক (পিপিএম) পেয়েছিলেন।