রূপগঞ্জে অবৈধ বালু ভরাট বন্ধে অভিযান

354

স্টাফ রিপোর্টারঃ রূপগঞ্জে অবৈধ বালু ভরাট বন্ধে ভ্রাম্যমাণ আদলত পরিচালনা করেছে পরিবেশ অধিদপ্তর। এ সময় তিনটি ড্রেজার আগুন দিয়ে বিকল করে দেওয়া হয়।

২১.০১.২০ তারিখ মঙ্গলবার দিনব্যাপী দাউদপুর ইউনিয়নের কুলিয়াদি, রঘুনাথপুর, লক্ষ্যা শিমুলিয়া, শিমুলতলা, ব্রাহ্মণখালী মৌজায় এ অভিযান পরিচালনা করা হয়। রূপগঞ্জ উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো.তরিকুল ইসলাম,পরিবেশ অধিদপ্তরের উপপরিচালক মো. সাঈদ আনোয়ার ও রূপগঞ্জ থানা পুলিশ এর সমন্বয়ে এ ভ্রাম্যমাণ আদলত পরিচালনা করা হয়।

২১.০১.২০ তারিখ মঙ্গলবার সন্ধ্যায় পরিবেশ অধিদপ্তরের উপপরিচালক মো. সাঈদ আনোয়ার স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, রূপগঞ্জে মৌজায় শত শত বিঘা সেচ প্রকল্পের ফসলি জমি,খামার ও বসতি শ্রেণির জমিতে জমি ইস্ট ওয়েস্ট প্রোপার্টিজ ডেভেলপমেন্ট (প্রাঃ) লি. কর্তৃক স্থানীয় প্রভাবশালী গ্রুপের সহায়তায় বালু ভরাট করা হয়েছে। অনেকের বসতি ও আবাদি জমি বালুতে তলিয়ে গেছে।

অভিযানকালে শীতলক্ষ্য নদীতে ১৩-১৫ টি ড্রেজার দেখা যায় যা থেকে পাইপ এর মাধ্যমে বালু ভরাট করা হচ্ছে ভরাটকৃত জায়গায় বসুন্ধরা গ্রুপের সাইনবোর্ড দেখা যায়। কিন্তু বালু ভরাট বিষয়ে পরিবেশ অধিদপ্তর থেকে ছাড়পত্র প্রদান করা হয়নি।

তিনি আরও জানায়, অভিযানে অবৈধ বালু ভরাটের বিষয়টি প্রমাণিত হওয়ায় তাৎক্ষণিকভাবে সকল ড্রেজার বন্ধ করে ভরাট কার্যক্রম বন্ধ করে দেওয়া হয়। ড্রেজারের পাইপের কাজ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয়। তিনটি ড্রেজার আগুন দিয়ে বিকল করে দেওয়া হয়। বালু ভরাট কাজ থেকে বিরত থাকার জন্য এলাকাবাসী, আইন শৃঙ্খলাবাহিনী ও অভিযানে উপস্থিত কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দের উপস্থিতিতে পরিবেশ অধিদপ্তরের পক্ষে সাইনবোর্ড স্থাপন করা হয়।

এ সময় স্থানীয়দের পুনরায় ভরাট কার্যক্রম শুরু করা হলে এলাকাবাসীকে সংশ্লিষ্ট দপ্তরকে সাথে সাথে অবহিত করার জন্য পরামর্শ প্রদান করা হয়। পরিবেশ অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে বালু ভরাট কাজে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে অনতিবিলম্বে এনফোর্সমেন্টসহ আইন অনুসারে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।