বিরোধী দল হওয়া সত্ত্বেও কোন কার্যক্রম নেই বললেই চলে-সেলিম ওসমান

311

স্টাফ রিপোর্টারঃ প্রায় ৮ বছর ধরে আহ্বায়ক কমিটি দিয়ে চলছে নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর জাতীয় পার্টির কার্যক্রম। জাতীয় সংসদের প্রধান বিরোধী দল হওয়া সত্ত্বেও থানা পর্যায়ে তাদের কোন কার্যক্রম নেই বললেই চলে। জাতীয় দিবস গুলোতে দুই একটা প্রোগ্রাম হলেও বাকি দিন গুলোতে তাদের খোঁজ পাওয়া যায় না। গত ৮ বছরে পূর্ণাঙ্গ কমিটি না হওয়ায় ক্ষুব্ধ তৃণমূল নেতাকর্মীরা। এদিকে বরাবরের মতো কমিটি দেয়ার আশ্বাস প্রদান করলেও তা বাস্তবায়ন করেননি জাতীয় পার্টি এমপি সেলিম ওসমান।

এদিকে আহবায়ক কমিটির মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে অনেক আগেই। নতুন কমিটি নিয়ে কয়েকবার আলোচনা করা হলেও তা আর হয়ে উঠেনি। ২০১২ সালের আগস্টে মেয়াদ শেষ হয়েছে নারায়ণগঞ্জ জেলা জাতীয় পার্টির কমিটি। একই সময়ে শেষ হয়েছে নারায়ণগঞ্জ মহানগর কমিটির মেয়াদ। দলের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন কবে হবে জানে না তৃনমুল নেতাকর্মীরা। এনিয়ে তাদের মাঝে এক প্রকার ক্ষোভ রয়েছে।

মাঠ পর্যায়ের নেতাকর্মীদের কথা বলে জানা যায়, নারায়ণগঞ্জের গুরুত্বর্পুণ ২ টি আসনেই জাতীয় পার্টির এমপি রয়েছে। তারাও দলের কর্মীদের ক্ষোভ দূর করতে পারছে না। কিন্তু নিজেরা ঠিকই পদ বাগিয়ে বসে আছেন। কিছু দিন আগে সাংসদ সেলিম ওসমান জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা মনোনিত হয়েছেন। অন্যদিকে সাংসদ লিয়াকত হোসেন খোকা কেন্দ্রীয় জাতীয় স্বেচ্ছা সেবক পার্টির সভাপতি নির্বাচিত হন। জেলার কমিটি নিয়ে কয়েকদফা আশ্বাস প্রদান করলেও তা আর বাস্তবে রূপ নেয়নি বলে অভিযোগ খোদ নিজ দলীয় নেতাকর্মীদের ।

এদিকে গত বছরের ১৫ ডিসেম্বর সেলিম ওসমান বন্দরে একটা অনুষ্ঠানে বলেন, দলের ভিতর কোন অভ্যন্তরীন কোন্দল রাখবেন না। জানুয়ারি মাসের ভিতরেই আমাদের সম্মোলন হবে। যেই কমিটি আপনারা বানাবেন তাই হবে। কিন্তু সবাইকে একত্রিত হতে হবে। আমাকে দায়িত্ব দিবেন আমি কমিটি বানায় দিবো। সেলিম ওসমানের এমন বক্তব্যের পর জানুয়ারি মাস শেষ হয়ে গেছে তবে কমিটির করার কোন খবর নেই। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন নেতাকর্মী জানান, সাংসদ সেলিম ওসমান কথা রাখতে ব্যর্থ হয়েছেন। জাতীয় পার্টির কমিটি নিয়ে কর্মীদের মাঝে তেমন আনন্দ উল্লাস ও নেই। কবে হবে তার অপেক্ষায় আছে কর্মীরা।

এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা জাতীয় পার্টির আহবায়ক আবুল জাহের বলেন, আগামি মাসের ১ তারিখ আমাদের মিটিং আছে। ওই মিটিংয়ে কমিটি কবে হবে তার সিদ্ধান্ত দিতে পারে এমপি সেলিম ওসমান।

উল্লেখ্য, সর্বশেষ ২০০৯ সালে নারায়ণগঞ্জে জেলা ও মহানগর জাতীয় পার্টির সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এরপর ২০১৩ সালে সেই কমিটি ভেঙ্গে আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয়। যেখানে জেলা আহবায়ক করা হয় আবুল জাহেরকে। আর মহানগর কমিটির আহবায়ক সানাউল্লাহ সানু এবং সদস্য সচিব করা হয় আকরাম আলী শাহীনকে। যারা অদ্যবধি এই পদে অধিষ্ঠিত রয়েছেন।