বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের ৭১তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে জেভিপিএফ এর শুভেচ্ছা

543

সময়ের চিন্তা ডট কমঃ বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের ৭১তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে দলের সকল পর্যায়ের নেতা কর্মিদেরকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন জাতীয় ভেজাল প্রতিরোধ ফাউন্ডেশন নারায়ণগঞ্জ জেলা সভাপতি সাংবাদিক সুলতান মাহমুদ ও সোনারগাঁ উপজেলার সভাপতি এডভোকেট সফর উদ্দিন সবুর।

জাতীয় ভেজাল প্রতিরোধ ফাউন্ডেশন নারায়ণগঞ্জ জেলার পক্ষে এক শুভেচ্ছা বার্তায় তারা বলেন, ইতিহাস ঐতিহ্য ও গৌরবের এই রাজনৈতিক দল বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠায় নেতৃত্ব দিয়েছে। বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের নেতৃত্বদানকারি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ সকল প্রয়াত নেতৃবৃন্দের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা ও বর্তমান সভাপতি বাংলাদেশের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনাসহ সকল জাতীয় নেতৃবৃন্দের সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করেন সাংবাদিক সুলতান মাহমুদ ও এডভোকেট সফর উদ্দিন সবুর।

১৯৪৯ সালের ২৩ জুন রোজ গার্ডেনে প্রতিষ্ঠা লাভ করেছিলো এশিয়ার অন্যতম বৃহৎ ও প্রাচীন রাজনৈতিক দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ। ভাষা আন্দোলন থেকে মুক্তিযুদ্ধ, সব আন্দোলন সংগ্রামে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়ে বাংলাদেশ গঠনে সর্বোচ্চ ভুমিকা পালন করেছে আওয়ামীলীগ। স্বাধীনতার পর থেকে দেশবিরোধীদের ষড়যন্ত্র স্বত্ত্বেও বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ ধ্বংসস্তুপ থেকে উঠে এসেছে, স্বৈরশাসনের অবসান ঘটিয়ে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করেছে।

তারা বলেন, আওয়ামীলীগ দেশের অন্যতম পুরনো, অসাম্প্রদায়িক, সর্ববৃহৎ ও বাঙালির জাতীয় মুক্তির সংগ্রামে নেতৃত্বদানকারী রাজনৈতিক দল। আর অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়ার কাজ প্রথম তারা এ দলটিকে দেশের অন্যতম প্রাচীন সংগঠন হিসেবে আখ্যায়িত করে বলেন, ভাষা, স্বাধিকার, গণতন্ত্র ও স্বাধীনতা অর্জনে মহোত্তম গৌরবে অভিষিক্ত আওয়ামীলীগের সাত দশকের অভিযাত্রায় শান্তি, সমৃদ্ধি ও দিন বদলের লক্ষ্যে অবিচল বাঙালি জাতির মুক্তির দিশারী। প্রতিষ্ঠার পর থেকেই এ দেশে পাকিস্তানি সামরিক শাসন, জুলুম, অত্যাচার-নির্যাতন ও শোষণের বিরুদ্ধে সকল আন্দোলন-সংগ্রামে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছে এ দলটি।

’৫২-এর ভাষা আন্দোলন, ’৫৪-এর যুক্তফ্রন্ট নির্বাচন, আইয়ুবের সামরিক শাসন-বিরোধী আন্দোলন, ’৬৪-এর দাঙ্গার পর সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি প্রতিষ্ঠা, ’৬৬-এর ছয় দফা আন্দোলন ও ’৬৯-এর গণঅভ্যুত্থানের পথ বেয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে আওয়ামী লীগের ২৪ বছরের আপোষহীন সংগ্রাম-লড়াই এবং ১৯৭১ সালের নয় মাসের মুক্তিযুদ্ধ তথা সশস্ত্র জনযুদ্ধের মাধ্যমে বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা লাভ করে। ঐ বছরের ১৬ ডিসেম্বর চূড়ান্ত বিজয় অর্জনের মধ্যদিয়ে প্রতিষ্ঠিত হয় বাঙালির হাজার বছরের লালিত স্বপ্নের ফসল স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশ।

তারই ধারাবাহিকতায় কাজ করে যাচ্ছেন বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় শেখ হাসিনা। ভেজাল ও দুর্নীতি প্রতিরোধ কঠোর হুশিয়ারি দিয়েছেন তিনি। শেখ হাসিনার নির্দেশ দুর্নীতি মুক্ত বাংলাদেশ। ভেজাল মুক্ত দেশ আমাদের স্বপ্ন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার প্রত্যয়ে জাতীয় ভেজাল প্রতিরোধ ফাউন্ডেশন সারা দেশব্যাপী কাজ করে যাচ্ছে। তাই ভেজাল ও দুর্নীতি প্রতিরোধে আমরা সরকারের প্রতিটি দপ্তর থেকে আন্তরিকভাবে সহযোগিতা চাই।