ভোকেশনাল খেলার মাঠ রক্ষায় ডিসিকে স্মারক লিপি প্রদান  

274

নিজস্ব সংবাদদাতাঃ  শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর কতৃক Capacity Building for Exiting 64 Technical Schocl & College  প্রকল্পের অর্থায়নে ৫তলা ফাউন্ডেশন সহ ৫ তলা একাডেমি -কাম -ওয়ার্কসপ ভবন নির্মান প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে গিয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলার  সিদ্ধিরগঞ্জ থানাধীন  পাঠানটুলী এলাকায় স্হাপিত “নারায়নগঞ্জ টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজ” (ভোকেশনাল) এর  উন্মুক্ত খেলার মাঠটি ঘিরে কাজ শুরু হওয়ায়  অত্র প্রতিষ্ঠানের  শিক্ষার্থী,  অভিভাবক ও  এলাকার জনসাধারণসহ সকলে নব ভবন নির্মান কাজের বিরোধীতাসহ ক্ষোভ প্রকাশ করেন। সকলের মতে খেলার মাঠটি বিনষ্ট না করে পরিত্যাক্ত ভবনের স্হানে  বা পরিত্যক্ত জমিতে ভবন নির্মান করা সম্ভব ছিলো । এটা না করে  তারা মাঠ কাটার মত আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত কেনো  নিলো? তা আমাদের কারোই বোধগম্য নয়। এ নির্মাণ কাজ বন্ধকরে খেলার মাঠ ঠিক রাখার দাবিতে শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও এলাকাবাসীর সাক্ষরিত একটি স্মারক লিপি জমাদেন নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোঃ মোস্তাইন বিল্লাহ এর নিকট।

২জুন বুধবার সকাল ১১টায় এ স্মারক লিপি জমাদেয়া হয়।

এ বিষয়ে খবর নিয়ে   যানা যায় যে প্রকল্পের অনুমোদন ক্রমে এ ভবনটি নির্মাণ হচ্ছে প্রায় ৮ কোটি টাকা ব্যয়ে। এ ভবনের পরিমান দৈর্ঘ ২১৫ এর প্রস্হ ৫২ফিট।

প্রায় ৬.৫০ একর জমির উপর ১৯৮৪ সালে এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি গড়ে উঠে। বর্তমানে মোট শিক্ষার্থী ১২০০ জন।এস এস সি ও এইচ এসসি ট্রেড সমূহ ওয়েলডিং, রিফ্রেজেটর ও এয়ারকন্ডিশন,অটোমোবাইল ও ইলেকট্রনিকস। অপরদিকে ডিপ্লোমা কোর্স হচ্ছে ইলেকট্রনিক্স।

শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও এলাকাবাসীর অভিযোগ হচ্ছে যে যেখানে অপরিত্যাক্ত ভবন ও জমি পরে আছে সে জমি ব্যবহার না করে কেনো কর্তৃপক্ষ পরিকল্পনা বিহীন শিক্ষার্থীদের খেলার মাঠ টি বিলিন করে কাজ করছে। যেখানে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা স্কুল প্রতিষ্ঠানে খেলার মাঠ রাখার। আজ সেখানে খেলাধুলার জন্য ব্যবহিত মাঠ বিলুপ্ত করে দেয়া হচ্ছে। আমরা চাই মাঠ ঠিক রেখে এ প্রকল্পের কাজ পরিত্যক্ত স্হানে করা হোক।

জেলা প্রশাসক এর হাতে স্মারকলিপি দেন  মাঠ রক্ষা সম্মিলিত প্রচেষ্টাকারীদের মুখপাত্র গোলাম মোস্তফা সাচ্ । এ সময় উপস্থিত ছিলেন জাতীয় ফুটবল দলের সাবেক অধিনায়ক মোহাম্মদ সুজন, জাতীয় ফুটবল দলের খেলোয়াড় সোহেল রানা, আন্দোলনে সংহতি জানিয়ে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ছাত্র মৈত্রীর কেন্দ্রীয় কমিটির সহ সভাপতি ও জেলা সভাপতি জেসমিন আক্তার, ছাত্র ফেডারেশনের জেলা সভাপতি ইলিয়াস জামান, মাঠ রক্ষা প্রচেষ্টাকারী সংগঠক আবু সাইদ, ইভান, জাহিদুল ইসলাম শুভ, মোঃ হাসান, সোহান,  সুইট,  শান্ত, মাহিম, সিফাত সহ প্রমুখ। এ ছাড়াও মুঠোফোনে সংহতি জানিয়েছেন বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের জেলা সভাপতি  শুভ বনিক।