ধর্মীয় উসকানির অভিযোগে সাংবাদিক মনিরের বিরুদ্ধে মানববন্ধন

98

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ বাঙালির সংস্কৃতি পহেলা বৈশাখ উদযাপনের আয়োজন নিয়ে ধর্মীয় উসকানি দেওয়ার অভিযোগে দৈনিক প্রথম আলোর সোনারগাঁ প্রতিনিধি সাংবাদিক মনিরুজ্জামান মনিরের বিরুদ্ধে মানববন্ধন করেছে সংস্কৃতি কর্মীরা।

২৭ এপ্রিল বুধবার বেলা ১২টায় নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন করেন তারা। পরে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কাছে সাম্প্রদায়িক সেই সাংবাদিকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য স্মারকলিপি প্রদান করেন।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, ‘সাংবাদিক মনিরুজ্জামান দেশের শীর্ষ একটি জাতীয় দৈনিক পত্রিকার নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলা প্রতিনিধি হিসেবে কর্মরত আছেন। তিনি পহেলা বৈশাখের আয়োজন নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ধর্মীয় উসকানিমূলক স্ট্যাটাস দিয়েছেন। আমরা বারবার দেখেছি যেকোন ধরনের অপকর্ম করতেই ধর্মকে ব্যবহার করা হয়। নানা সময় সাম্প্রদায়িক উসকানি দেওয়া হয়েছে ব্যক্তিস্বার্থ হাসিলের জন্য। বড় বড় সিন্ডিকেট, ভূমি সন্ত্রাস, বালু সন্ত্রাস এসব উসকানির পেছনে থাকে। সাংবাদিক মনিরুজ্জামান মনিরের কর্মকান্ডেও একই বিষয় দেখতে পাই। ধর্মীয় উসকানিদাতারা নিজেদেরকে ধর্মপ্রাণ প্রমাণ করার আড়ালে ধর্মীয় উসকানি দিয়ে মানুষকে অসাম্প্রদায়িক চেতনার বিরুদ্ধে দাড় করিয়ে দেয়। আমরা বারবার এদের বিরুদ্ধে দাড়াবো এবং এটাই প্রমাণ করবো যে, আমরা অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ চাই।’

তারা আরও বলেন, ‘পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে সোনারগাঁয়ের একটি কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে বিভ্রান্তমূলক অপপ্রচার করার চেষ্টা করা হয়েছে। ওই কর্মসূচিতে সরকারি কর্মকর্তা, স্থানীয় শিক্ষক, সাংবাদিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। সারাদেশেই নববর্ষ সরকারি উদ্যোগেও পালন করা হয়। বাঙালি সংস্কৃতির উল্লেখযোগ্য উৎসব হিসেবে এটি পালিত হয়। ঐতিহ্যবাহী লোক ও কারুশিল্প জাদুঘর, পানাম নগরী ঐতিহাসিক সোনারগাঁয়ে অবিস্থিত। এই উপজেলাটি ঐতিহ্যগত দিক থেকে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। অথচ সেই এলাকায় বিভ্রান্তিমূলক প্রচারণা মেনে নেওয়া যায় না। এই ধরনের বিভ্রান্তমূলক প্রচারণার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। শুধু এই ঘটনা নয়, সারাদেশের যেখানে এই ধরনের বিভ্রান্তমূলক প্রচারণা চালানো হয়েছে তাদেরও ধিক্কার জানাই।’

মানববন্ধনে সংস্কৃতি কর্মীরা অভিযুক্ত সাংবাদিকের বিরুদ্ধে তার কর্মপ্রতিষ্ঠান ও প্রশাসনের ব্যবস্থা নেওয়ারও দাবি জানান। একই দাবিতে তারা নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি প্রদান করেন।

‘সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে নারায়ণগঞ্জ’ এর ব্যানারে এই মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন প্রগতি লেখক সংঘ নারায়ণগঞ্জ জেলার সাধারণ সম্পাদক বিমল কান্তি দাস, চারণ সাংস্কৃতিক সংগঠনের সংগঠক সেলিম আলাদিন, প্রদীপ সরকার, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের সদস্য ও জেলা মহিলা শ্রমিকলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নীলা আহমেদ নিশি, শ্রুতি সাংস্কৃতিক একাডেমীর কর্মী অভি জাহিদ প্রমুখ।