চাঞ্চল্যকর ক্লু-লেস হত্যা মামলার দুইজন সন্ধিগ্ধ আসামী  গ্রেফতার

54

জান্নাতুল নাঈম সুরাইয়াঃ নারায়ণগঞ্জ জেলার আড়াইহাজার থানার চাঞ্চল্যকর ক্লু-লেস হত্যা মামলার দুইজন সন্ধিগ্ধ আসামী সোনারগাঁও পরমেশ্বরদী এলাকা হতে র‌্যাব-১১ কর্তৃক গ্রেফতার হয়েছে। র‌্যাব প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে সমাজের বিভিন্ন অপরাধের উৎস উদঘাটন, অপরাধীদের গ্রেফতার, অপরাধ দমন ও আইন শৃঙ্খলার সামগ্রিক উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। এছাড়াও বিভিন্ন চাঞ্চল্যকর এবং আলোচিত অপরাধের অপরাধীদের গ্রেফতারে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে আসছে। নিবিড় গোয়েন্দা নজরদারী ও পরিকল্পিত আভিযানিক কার্যক্রমের ধারাবাহিকতায় অপরাধী গ্রেফতার এবং আইনের আওতায় এনে র‌্যাব ইতিমধ্যেই জনগণের আস্থা অর্জনে সক্ষম হয়েছে। 

গত ০৭/১০/২০২২ তারিখে আনুমানিক ০৪.০০ ঘটিকায় আড়াইহাজার হইতে গাউছিয়াগামী পাকা রাস্তায় ঝাউপড়া বাজারের অনুমান-৫০ গজ পশ্চিমে পল্লীবিদ্যুৎ সাব-ষ্টেশনের নিকট মোঃ মোমেন (৩২) নামের একজন কাঁচামাল ব্যবসায়ীর শরীরের বিভিন্ন স্থানে ধারালো ছুড়ি দ্বারা আঘাত প্রাপ্ত লাশ পাওয়া যায়। এই ঘটনায় ভিকটিমের বড় ভাই মোঃ আলমগীর (৪৫) বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামীদের বিরুদ্ধে আড়াইহাজার থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন যার মামলা নং-৭ তারিখ-০৭/১০/২০২২, ধারা- ৩৯৪/৩০২/৩৪ পেনাল কোড ১৮৬০।

উক্ত ঘটনার পরপরই এই নৃশংস হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত আসামীদের সনাক্ত ও গ্রেফতারের জন্য র‌্যাব-১১ এর সদর কোম্পানীর একটি চৌকস গোয়েন্দা দল ছায়াতদন্ত শুরু করে। পরবর্তীতে গোয়েন্দা কার্যক্রম ও তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তায় অত্র হত্যার সাথে জড়িত আসামীদের সনাক্ত ও অবস্থান নিশ্চিত করতে সক্ষম হয়। এরই ধারাবাহিকতায় গত ২৪ অক্টোবর ২০২২ ইং তারিখ আনুমানিক ০১:৩০ ঘটিকায় সোনারগাঁও  থানাধীন পরমেশ্বরদী এলাকায় বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে এই হত্যাকান্ডের সন্ধিগ্ধ আসামী ১। সোহেল মোল্লা @ সোহেল (৩৪), পিতা-বিল্লাল হোসেন মোল্লা, গ্রাম-ঝাউগড়া মোল্যাবাড়ি, ২। মোঃ আরমান হোসেন (৪৫), পিতা-মৃত আরফত আলী, গ্রাম-ঝাউগড়া উত্তরপাড়া, উভয় থানা-আড়াইহাজার, জেলা-নারায়ণগঞ্জদ্বয়কে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।  

গ্রেফতারকৃত আসামীদ্বয়কে পরবর্তী আইনানুগ কার্যক্রমের জন্য আড়াইহাজার থানার অত্র মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তার নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে।