দুই কিশোরীকে অপহরণ ও ধর্ষনের অভিযোগে গ্রেফতার ৩ জন

198


মোঃ মোক্তার হোসাইন:বিশেষ প্রতিনিধি

নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে দুই কিশোরীকে অপহরণ করে ৫ লাখ টাকা মুক্তিপন দাবি ও এক কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে অপহৃত কিশোরীদের উদ্ধ্বারসহ ৩ অপহরণকারীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গত শনিবার ১ জুলাই সিদ্ধিরগঞ্জের সিআইখোলা এলাকার শাহজাহানের বাড়ীর ভাড়াটিয়া বাসা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃত ৩ আসামিরা হলো, ডিএমপির কদমতলী থানার শ্যামপুর শাহী মসজিদ সংলগ্ন হাসেম মিয়ার বাড়ীর ভাড়াটিয়া মো. রাসেল (৩৩), সিআইখোলা শাহজাহানের বাড়ীর ভাড়াটিয়া আল আমিন (৩২) ও পাইনাদি কবরস্থান সংলগ্ন সামসুল হক সাহেবের বাড়ীর ভাড়াটিয়া মো. মামুন (৩৯)। এঘটনায় পলাতক রয়েছে গ্রেফতারকৃত আসামি আল আমিনের স্ত্রী জোসনা বেগম (২৮)।

বাদীর অভিযোগ, তার মেয়ে (১০) ও ভায়রার মেয়ে (১২) গত ১ জুলাই বিকাল পৌনে ৬ টায় ডিএমপির শাহজাহানপুর থানার শান্তিবাগ এলাকার তার বাসা থেকে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার কদমতলী কলেজপাড়া এলাকায় তার ভায়রার বাসার উদ্দেশ্যে রওনা করে। রাত ৮ টায় সিদ্ধিরগঞ্জের চিটাগাংরোডে বাস থেকে নামার পর আসামিরা কৌশলে তাদের অপহরণ করে সিআইখোলা এলাকার শাহজাহানের বাড়ীর ভাড়াটিয়া আল আমিনের বাসায় নিয়ে যায়। সেখানে তাদের আটকে রেখে পাঁচ লাখ টাকা মুক্তিপন দাবি করে। মুক্তিপন টাকা না দিলে তাদেরকে মেরে ফেলার হুমকি দেয়া হয়। বিষয়টি সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশকে জানালে তারা অপহৃত কিশোরীদের উদ্ধ্বারসহ ৩ অপহরণকারীকে গ্রেফতার করে। উদ্ধারের পর ভায়রার মেয়ে (১২) জানায় গ্রেফতারকৃত আসামি আল আমিনের স্ত্রী জোসনা বেগমর হুকুমে আসামি মো. রাসেল তাকে ধর্ষণ করে।

সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোলাম মোস্তাফা জানান, দুই কিশোরীকে অপহরণ করে ৫ লাখ টাকা মুক্তিপন দাবি ও এক কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে অপহৃত কিশোরীদের উদ্ধ্বারসহ ৩ অপহরণকারীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। পলাতক আসামিকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। ধর্ষণের ঘটনায় এক কিশোরীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।