পয়সা পেয়ে মিথ্যা নিউজ করে নারায়নগঞ্জের সম্পাদকরা

312

নিজস্ব প্রতিনিধি: পয়সা পেয়ে মিথ্যা ও ভুয়া নিউজ করে নারায়নগঞ্জের লোকাল পত্রিকার সম্পাদকরা। এতে রক্ষা পায়না পুলিশ সাংবাদিক এবং অসহায় মানুষ। জাতির বিবেক হয়েও বিভেকহীন কাজ করছে টাকার বিনিময়ে। এস আই কামরুল ইসলামের নামে পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদ ভুল বললেন ওসি তদন্ত কাজি মাসুদ রানা।

গত ২৪ অক্টোবর ভোর ৪ টায় ডিউটিরত অবস্থায় নারায়ণগঞ্জ ফতুল্লা কায়েমপুর এলাকায় তিন জন সোর্সসহ সিদ্দিরগন্জ থানার এস আই কামরুল আটকের খবর প্রকাশিত হয় নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন স্থানীয় পত্রিকায় যা ছিল সম্পুর্ন মিথ্যা।প্রকাশিত সংবাদে উল্লেখ রয়েছে উপর মহলে কোনো রকম তথ্য না দিয়ে সে ফতুল্লায় প্রবেশ করে এবং সেই এলাকায় কিলো ডিউটি রত ছিল এস আই সাইফুল ইসলাম । সে সোর্সদের প্রশ্ন করার পরেই উঠে আসে এস আই কামরুলের নাম। পরক্ষণে সিদ্ধিরগঞ্জ এবং ফতুল্লা থানার উভয় দুই ওসি তদন্ত হাজির হয় বলে মুঠো ফোনে জানায় উজ্জীবিত বাংলাদেশ এর ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক কবিরুল ইসলাম। সংবাদে প্রকাশ– সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসি গোলাম মোস্তফার তদবিরে মুক্তি পায় এস আই কামরুল ।
এ বিষয়ে ওসি গোলাম মোস্তফাকে মুঠোফোনে ফোন করলে তিনি জানান, আমি এ বিষয়ে অবগত নই। আমাকে কেউ ফোন করে নাই, আমি কোন তদবির করি নাই। ঘটনাতে থাকা ওসি তদন্ত কাজি মাসুদ রানাকে ফোন করলে সে সাংবাদিকদের জানায় দারোগা আটকের কোনো খবর আমার কাছে নাই। প্রকাশিত সংবাদে যদি এরকম কিছু লিখে থাকে সেটা ভুল।
সাংবাদিকের প্রশ্ন -সোর্সরা কি এখোনো আটক রয়েছে? তাদের নামে কি মামলা হয়েছে? মামলা হলে কি মামলা দেওয়া হয়েছে? সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে কাজি মাসুদ রানা বলেন এবিষয়ে আমি কিছু জানি না,ওসি সাহেব জানে। ওসি সাহেবকে ফোন ও মেসেজ করেও পাওয়া যায় নি। পরক্ষণেই এস আই সাইফুল ইসলামকে কল দিলে সে ফোন রিসিভ করছে না। চলবে