দুর্নীতিবাজ এসআই সাফি ও ফিরোজের বিচার শুরু

130

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ সাংবাদিক সুলতান মাহমুদের অভিযোগের ভিত্তিতে দুর্নীতিবাজ এসআই সাফি ও ফিরোজের বিচার শুরু হয়েছে।ঢাকা রেঞ্জ ডিআইজির নিকট অভিযোগের ভিত্তিতে ঘুষখোর ডিবির এসআই শফিউদ্দিন সাফি ও সোনারগাঁ থানার এসআই ফিরোজের বিরুদ্ধে এই বিচার কার্য শুরু হয়।

পুলিশ সুপার কার্যালয় নারায়নগঞ্জ এর স্মারক নং ৮৪৯/অপরাধ, তারিখ ১২/০২/২৪ খ্রিঃ রেঞ্জ ডিআইজির কার্যালয়, ঢাকা এর স্মারক নং প্রসিঃ/১৭-২৪/৫(২)নোঃ ব্যঃ(অংশ-০১)/১৫৫৯,তারিখ ম০৭/০২/২৪ খ্রি ভিত্তিতে সাংবাদিক সুলতান মাহমুদ নোটিশ পেয়ে তার জবাব প্রেরন করেন। স্বাক্ষীর জবাবে তিনি বলেন, সুত্রঃ সোনারগাঁ থানার মামলা নং ৩১(০৮)২৩ নারায়নগঞ্জ সদর থানার মামলা নং ৩১(১০)২৩ বিষয়ঃ পুর্ব শত্রুতা ও সংবাদ প্রকাশের জেরে ষড়যন্তমুলকভাবে, অন্যের প্ররোচনায় ও অনৈতিক সুবিধা পেয়ে এবং উদ্দেশ্য প্রনিত মামলা থেকে নিম্মস্বাক্ষরকারীর নাম প্রত্যাহার করে দোষীদের বিচার করার আবেদন করেন।

ভুক্তভোগীর বক্তব্য,“বর্তমান ঠিকানাঃ বাড়ী নং ০১, নেকবর মাতবর রোড, রগুনাথপুর,(আরাফাত নগর) ফতুল্লা,   নারায়ণগঞ্জ, বসে কাজ করতে বিভিন্নভাবে হয়রানি হচ্ছেন। পুর্ব শত্রুতা ও সংবাদ প্রকাশের জেরে ষড়যন্তমুলকভাবে, অন্যের প্ররোচনায় ও প্রতিহিংসায় এবং উদ্দেশ্য প্রনিতভাবে অনৈতিক সুবিধা পেয়ে সোনারগাঁ থানার মামলা নং ৩১ তারিখ ২১/০৮/২৩ ইংতে বাদী এস আই ফিরজ নিম্মস্বাক্ষরকারী  সাংবাদিক সুলতান মাহমুদের নাম অন্তর্ভুক্ত করে। সোনারগাঁ থানার মামলা ৩১/০৮/২৩ এর ব্যপারে ওসি মাহবুর রহমান সুমনকে জিজ্ঞাসা করলে তিনি বলেন, “ভাই তাড়াহুড়া মধ্যে ভুলে হয়ে গেছে, আপনি জামিন নিন বাকীটা আমি দেখব।”এ ব্যাপারে এস আই ফিরোজকে জিজ্ঞসা করলে তিনি বলেন,“আপনি স্যারের সাথে কথা বলেন।” আপনার অবগতির জানানো যাচ্ছে যে বিগত ১৯ অগাস্ট ২৩ ইং তারিখে ৩টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত নিম্মস্বাক্ষরকারী সাংবাদিক সুলতান মাহমুদ অপরাধ বিচিত্রার অফিস ৭৮ মতিঝিল, বায়তুল হক ভবন সভায় উপস্থিত ছিলাম।

একইভাবে ডিবির এস আই সফিউদ্দিন সাফি অনৈতিক সুবিধা পেয়ে ৬ নভেম্বর রাত ১১টায় জামতলা থেকে স্যার কথা বলবে বলে ডিবি অফিসে নিয়ে নারায়ণগঞ্জ সদর থানার মামলা নং ৩১ তারিখ ৩০/১০/২৩ ইং  নিম্মস্বাক্ষরকারী সাংবাদিক সুলতান  মাহমুদের নাম অন্তর্ভুক্ত করে কোর্টে চালান করে। নারায়নগঞ্জ সদর থানার মামলার কথা ডিবির এস আই সাফিকে জিজ্ঞাসা করলে তিনি বলেন, “স্যারের কথায় করা হয়েছে”কিন্তু কোন স্যার সেটা তিনি বলেন না। ডিবির এস আই সফি অনৈতিক সুবিধা পেয়ে আমাকে সমাজে হেয় পতিপন্ন ও আর্থি ক্ষতিগ্রস্ত করার জন্য এই অপকর্ম করেছে। আমার স্মার্ট ফোন ক্লোন করে সমস্ত ডকুমেন্ট কপি করে রেখেছে, অনেক  ব্যবসায়ী ফাইল গায়েব  করে দিয়েছে। বাটন মোবাইল থেকে অডিও রেকড ডিলিট করেছে্‌। আমি নিম্মস্বাক্ষরকারী সাংবাদিক কোন দলের সাথে জড়িত  নই বা কোন রাজনীতি করি না। বিগত ২৭,২৮,২৯ অক্টোবর ২০২৩ ইং আমি সাংবাদিক সুলতান মাহমুদ পত্রিকা ও সংগঠনের কাজে সিলেটে অবস্থান করি। ২৮ অক্টোবর শাহপরান থানার ওসি, কোতায়ালী থানার ওসি’র সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ করি, সিএমপি’র পুলিশ কমিশনার ও ডেপুটি পুলিশ কমিশ্নারকে অফিসে গিয়ে না পেয়ে তাদের সাথে হোয়াটস অ্যাপে মেসেজ ও কথা হয়। ২৯ অক্টোবর সকাল ১০/১০.৩০ টায় সিলেট সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাসরিন আক্তারের সাথে, অতিরিক্ত জেলা মেজিষ্ট্রেট ইমরুল হাসানের সাথে ১১.৪০/১২টায়, জেলা প্রশাসক রাসেল হাসানের সাথে ১২.৫০/১.১৫ টায় সৌজন্য সাক্ষাৎ করি। এডভোকেট খোরশেদ আলম সভাপতি জাতীয় ভেজাল প্রতিরোধ ফাউন্ডেশন সিলেট মহানগর’র সাথে ১.৩০ মিনিটে, শাহপরান মাজারে খাদেমের সাথে ২ টায়, জাতীয় ভেজাল প্রতিরোধ ফাউন্ডেশনের শাহপরান কমিটির সাথে মিটিং বিকাল ৩.৩০/৪ টায় সম্পন্ন করে বিকাল ৫টার দিকে বাসে নারায়ণগঞ্জের উদ্দেশ্যে রওনা হয়ে রাত্রে নারায়নগঞ্জ  পৌচ্ছি। তাহলে  কিভাবে আমায় মিথ্যা মামলায় জড়ানো হল, আমার সম্মানহানী করা হল, আমাকে  আর্থিক ক্ষতিগ্রস্থ করা হল তার বিচার করে দোষীদের শাস্তির ব্যবস্থা করে মিথ্যা মামলা থেকে  নিম্মস্বাক্ষরকারীর নাম প্রত্যাহরের করার অনুরোধ করছি।” স্বাক্ষীতে ১)বাসের টিকেট কপি ২)খাবার বিলের কপি ৩)অফিস প্রত্যায়ন কপি ৪) অডিও এবং ভিডিও ক্লিপ ইমেইলে ৫) ফেসবুকের স্কীন সর্টের কপি সুংযুক্তি করেন এবং প্রয়োজনে আরো তথ্যাদি দিবেন বলে জানান তিনি।