নারায়নগঞ্জে ছড়াছড়ি নকশা বহির্ভুত বিল্ডিং,নীরব ভুমিকায় রাজউক-৮

115

 নিজস্ব প্রতিবেদকঃ নারায়নগঞ্জ শহরে ছড়াছড়ি নকশা বহির্ভুত বিল্ডিং’র কিন্তু  নীরব ভুমিকায় রাজউক-৮ জোনের কর্মকর্তারা। নারায়ণগঞ্জ রাজউকের পরিচালক বরাবর অভিযোগের পত্র দেওয়া হলেও কোন ব্যবস্থা না নিয়ে নীরবতা পালন করছে কর্মকর্তারা। এই অভিযোগ পত্রের অনুলিপি কার্যার্থে দেওয়া হয়েছে রাজউকের চেয়ারম্যানকে, তবুও টনক নড়ছে না রাজউক-৮ জোনের অফিসারদের।

সুত্রমতে, চাষাড়ার ৬৯ নং প্লটে সুফিয়া কমপ্লেক্স ৯ তলার নকশায় তৈরি হয়েছে ১০ তলা। হক লিভিং লিমিটেড ৯ তলার নকশা নিয়ে কাজ শুরু করে ১ তলা পর্যন্ত তৈরি করে, পরবর্তিতে মালিক পরিবর্তন হয়ে আসে কমিট্মেন্ট ডেভ্লপার আবদুল আজিজ। শুরু হয় দুর্নীতি, ৯ তলার পরিবর্তে ১০ তলা, তার উপর মসজিদ, গ্রাউন্ড ফ্লোরে পার্কিং না করে বিক্রি করছে দোকান অফিস, চারদিকে রাজউকের কোড না মেনে তৈরি হচ্ছে ভবন। সময়মত ফ্লাট বুজে না পেয়ে হয়রানীর শিকার গ্রাহকরা। চাষাড়ার রুপায়ন টাওয়ারের সামনের এক সাইডে নকশা বহির্ভুত দোকান অপসারন করছে না রাজউক-৮ জোনের কর্মকর্তারা। জামতলা হীরা কমিউনিটি গলিতে আবাসিক এলাকার আবাসিক অনেক ভবনে গড়ে উঠেছে বানিজ্যিক  বিভিন্ন দোকান ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান কিন্তু কোন ব্যবস্থা নিচ্ছে না রাজউক-৮ জোনের পরিচালক। আবাসিক ভবন বাণিজ্যিকে রূপ দিলেও এই বিষয়ে মাথা ব্যাথা নেই রাজউক কর্মকর্তাদের।

চাষাড়া রুপায়নের পশ্চিম পাশে এক আওয়ামী-লীগ নেতার নিজের বিল্ডিং হচ্ছে নকশা বহির্ভূত এবং নেতার বাবার বিল্ডিং এর সামনে করছে অবৈধ স্থাপনা, রাজউক নিচ্ছে না কোন ব্যবস্থা।

এব্যাপারে নারায়ণগঞ্জ রাজউক ৮ জোনের পরিচালক ইয়াহিয়া খানকে কল করলে তিনি কল ধরেন নি, দুইজন অথারাইজড অফিসারকে কল করলেও তাহারা কল ধ্রেন নাই।

জাতীয় ভেজাল প্রতিরোধ ফাউন্ডেশন নারায়ণগঞ্জ জেলা সভাপতি সাংবাদিক সুলতান মাহমুদ নকশা বহির্ভুত ভবনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য রাজুক চেয়ারম্যানকে আহবান জানিয়েছেন।