শেরপুরে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিজয়ী প্রার্থী

174

হালিমা বেগম ইতি : 

সারাদেশের ন্যায় শেরপুর জেলায় নকলা-নালিতাবাড়ী দুই উপজেলা পরিষদের দ্বিতীয় ধাপের ৬ষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

গত মঙ্গলবার ২১মে সারাদেশের ন্যায় শেরপুর জেলায় নকলা-নালিতাবাড়ী দুই উপজেলা পরিষদের দ্বিতীয় ধাপের ৬ষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিজয়ী প্রার্থী হলেন  নকলা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী হয়েছেন এড ,একে,এম, মাহবুবুল আলম, ভাইস-চেয়ারম্যান পদে আবু হামযা কনক, মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান পদে, লাকী আক্তার, অন্যদিকে নালিতাবাড়ী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান হিসেবে বিজয়ী হয়েছেন, হাজী মোশারফ হোসেন, ভাইস-চেয়ারম্যান পদে,শেখ ফরিদ, মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান পদে, মোছাঃ আশুরা বেগম।

এসময় নকলা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে এড,একে,এম, মাহবুবুল আলম দোয়াত-কলম প্রতিকে ২০ হাজর ৬৫৪ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মোঃ মোকশেদুল হক কাপ-পিরিচ প্রতিকে পেয়েছেন ১৯ হাজার ২১৩ ভোট পেয়ে পরাজিত হয়। ভাইস-চেয়ারম্যান পদে আবু হামযা কনক চশমা প্রতিকে ৩১ হাজার ১৯৭ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মোঃ মোশারফ হোসেন সরকার টিয়া-পাখি প্রতিকে ২৭ হাজার ১৪২ ভোট পেয়ে পরাজিত হয়েছেন। মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান পদে,লাকী আক্তার প্রজাপতি প্রতিকে ৬১ হাজার ২৬৯ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে বিজয়ী হয়েছেন। নকলা উপজেলায় ৭৯টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। অন্যদিকে নালিতাবাড়ী উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে হাজী মোশারফ হোসেন রেকর্ড পরিমাণ  ঘোড়া প্রতিকে ৬১ হাজার ৭৯৬ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী মোঃ মোকছেদুর রহমান লেবু (আনারস) পেয়েছেন ৩৯ হাজার ৮০৭ ভোট পেয়ে পরাজিত হয়েছেন। ভাইস চেয়ারম্যান পদে শেখ ফরিদ (টিওবয়েল) ৩৯ হাজার ৭৩৮ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে বিজয়ী হয়েছেন। তার রাজনৈতিক নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী মেহেদী হাসান রাজন (চশমা) পেয়েছেন ৩৩ হাজার ২৫ ভোট পেয়ে পরাজিত হয়। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে আশুরা বেগম (কলস) ৬৮ হাজার ৮৫১ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী নহেলিকা দিব্রা (ফুটবল) পেয়েছেন ১৪ হাজার ২৫৮ ভোট। নকলা -নালিতাবাড়ী দুই উপজেলায় সকাল ৮ টা থেকে উপজেলার ৮৩ টি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ শুরু হয়, বিকেল ৪ টা পর্যন্ত ভোট গ্রহণ সম্পন্ন হয়।আইনশৃংখলা পরিস্থিতি  কঠোর ছিলো কোনো রকমের বিশৃঙ্খলা ও হট্টগোল হয়নি উপজেলাতে।সুস্থ ও সুন্দরভাবে ভোট গ্রহণ এবং  প্রদান করেছেন উৎসুক জনগন।