হবিগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাচনে মোতাচ্ছির চেয়ারম্যান, আওয়াল ও কুমকুম ভাইস-চেয়ারম্যান

85


মোঃ জমির আলী হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধিঃ

হবিগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আনারস প্রতীকে স্বতন্ত্র প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন মোতাচ্ছিরুল ইসলাম। তিনি পেয়েছেন ৩৬ হাজার ৪১৯ ভোট, তার নিকটতম প্রতিন্দ্বন্দ্বি সরকারি দলের পক্ষ থেকে মশিউর রহমান শামীম কাপ পিরিচ প্রতীকে পেয়েছেন ৩৩ হাজার ৭১৫ ভোট, মুহিবুল ইসলাম শাহীন মোটর সাইকেল প্রতীকে পেয়েছেন ১০ হাজার ২১৭ ভোট, চৌধুরী নিয়াজ মাহমুদ দোয়াত কলম প্রতীকে পেয়েছেন ৪ হাজার ৫০৫ ভোট, ওয়াসিম উদ্দিন ঘোড়া প্রতীকে ৩ হাজার ৪৫৬ ভোট, সৈয়দ আশিকুর রহমান হেলিকপ্টার প্রতীকে ২ হাজার ৮২২ ভোট। ৭৪ কেন্দ্রে মোট ভোটার ৯১ হাজার ১৩৪ জন, বাতিল ভোট সংখ্যা ২৬৩১, প্রদত্ত ভোটের সংখ্যা ৯৩ হাজার ৭৫৬ ভোট, শতকরা হার ৪৪.১১%। ভাইস চেয়ারম্যান পদে টিউবওয়েল প্রতীকে মাহবুুবুর রহমান আওয়াল ২২ হাজার ৫৬৪ ভোট বিজয়ী হয়েছেন, তার নিকটতম প্রতিন্দ্বন্দ্বি আব্দুর রহমান সেলিম টিয়া পাখি প্রতীকে পেয়েছেন ২১ হাজার ৫১২ ভোট, কাজল আহমেদ বই প্রতীকে পান ৫ হাজার ৮৯২ ভোট, কাজী মওলানা আব্দুল কাইয়ূম বৈদ্যুতিক বাল্ব ৫ হাজার ৯৮৮ ভোট, মোঃ শহিদুজ্জামান শাহীন গ্যাস সিলিন্ডার প্রতীকে পেয়েছেন ২ হাজার ৯১৮ ভোট, নুরুল হক টিপু চশমা প্রতীকে পেয়েছেন ৫ হাজার ৮৫৩ ভোট, মোঃ মামুন মিয়া পালকী প্রতীকে পান ৪ হাজার ৪২৮ ভোট, সারোয়ার হোসেন উড়োজাহাজ পান ৭ হাজার ৪১৮ ভোট, সোহাগ চৌধুরী তালা পান ৮ হাজার ৮৬৯ ভোট, সালেহ আহমেদ চৌধুরী মাইক প্রতীকে পান ৪ হাজার ৪২৯ ভোট। মোট ভোটার ৮৯ হাজার ৯৭১, বাতিল ভোট ৩ হাজার ৭৫০, প্রদত্ত ভোটের সংখ্যা ৯৩ হাজার ৭২১ ভোট। ভোটের হার ৪৪.০৯%। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে কলস প্রতীকে সৈয়দ শরীফা আক্তার কুমকুম পান ৩৯ হাজার ৬৯৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন। নুরুন্নাহার হাঁস প্রতীকে পান ৩০ হাজার ৪৯০ ভোট, ফেরদৌস আরা বেগম ফুটবল ১৩ হাজার ৫৭৮ ভোট, আয়শা খানম রানী প্রজাপতি পান ৬ হাজার ৪৮৪ ভোট। মোট ভোটার ৯০ হাজার ২৫১, বাতিল ভোট, ৩ হাজার ৪৯৪, প্রদত্ত ভোট ৯৩ হাজার ৭৪৫, ভোটের শতকরা হার ৪৪.১০%। এদিকে চেয়ারম্যান পদে জামানত হারালেন সৈয়দ আশিকুর রহমান, ওয়াসিম উদ্দিন, চৌধুরী নিয়াজ মাহমুদ লিংকন।