সন্ত্রাসী রমজান বাহিনীর হামলায় মিনারা বেগম আহত

576

আসাদুর রহমান সানীঃ নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার পূর্ব সস্তাপুরে সন্ত্রাসী রমজান বাহিনীর হামলায় মিনারা বেগম নামে এক মহিলা গুরুতর জখম হয়েছে। এ ব্যাপারে মিনারা বেগমের মেয়ে পপি আক্তার ফতুল্লা মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে। এসআই রাজু মন্ডলকে তদন্ত করার দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, শিবু মার্কেট পূর্ব সস্তাপুরে মোঃ রকির স্ত্রী পপি আক্তার মায়ের সুত্রে সামান্য জমি পান। সেখানে একটি ছাবড়া ঘর তুলে বসবাস করে আসছে। সেই জমির উপর কুদৃষ্টি পড়ে মোঃ জামির আলীর।বৃহস্পতি বার (৩ মে) সকাল ৯ ঘটিকার সময় জামির আলীর সন্ত্রাসী পুত্র মোঃ রমজান ও মোঃ বাবু দখল করার চেষ্টা করলে বাদী পপি আক্তার ও তার মা মিনারা বেগম বাধা প্রদান করে।এ সময় ক্ষিপ্ত হয়ে সন্ত্রাসী রমজান ও বাবু, জামির আলীর স্ত্রী সেলিনা বেগম, মৃত রিয়াজ আলীর ছেলে জামির আলী লাঠি ও লোহার পাইপ নিয়ে হামলা চালায় ও নানান ভাষায় গালি-গালাজ করে। সন্ত্রাসীদের ভয়ে বাদী পপি আক্তার,তার মা পার্শ্ববতী বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছে।বাদী ও তার ভাই গালি-গালাজ করতে নিষেধ করলে সন্ত্রাসীরা বাদীর মা মিনারা বেগম ও তার ভাই মিলনকে বেধড়ক পিটাতে থাকে। এক পর্যায়ে সন্ত্রাসী রমজান লোহার পাইপ দিয়ে মিনারা বেগমের মাথায় আঘাত করে রক্তাক্ত জখম করে এবং হাত ভেংগে ফেলে। স্বজনরা উদ্ধার করে খানপুর হাসপাতালে নিয়ে যায়। মাথায় ৯ টি সেলাই পড়ে।যাবার সময় সন্ত্রাসীরা এ নিয়ে বাড়াবাড়ি করলে প্রানে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। বাদীর মা গুরুতর জখম মিনারা বেগম কান্না জড়িত কন্ঠে বলেন, আমি বিভিন্ন বাসায় কাজ করে মেয়ের সাথে একঘরে থাকি। সেই জমিটি দখল করার জন্য সন্ত্রাসীরা হত্যার উদ্দ্যেশে হামলা চালায়। সন্ত্রাসী বাবু ও রমজান প্রকাশ্যে হুমকি দিয়ে বলে তোদের খুন করে ২ লাখ টাকা খরচ করলে সব শেষ।এ ব্যাপারে তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই রাজু মন্ডল বলেন,আমি ঘটনাস্থলে গিয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিব।