আগামী ১ জুলাই ওয়াসার পানরি দাম বাড়ানোর সদ্ধিান্ত

533

আসাদুর রহমান সানী, সময়রে চন্তিা ডট কমঃ আগামী জুলাই থেকে মোট দামরে শতাংশ বাড়ানোর সদ্ধিান্ত নয়ো হইয়েছে।  ওয়াসা গ্রাহকদরে চাহদিা মাফিক বিশুদ্ধ পানি দিতে না পারলওে নারায়ণগঞ্জসহ রাজধানীতে পানির দাম আবারও বাড়াছে। বছরে একবার দাম বাড়ানোর নিয়ম থাকলেও  গত বছরের নভেম্বরে জুলাইয়ে দুই দফায় পানির দাম বাড়ানো হয়

সূত্রে মম্র, জুলাইয়ের পর বছর আরও এক দফা দাম বাড়ানো হবে।  এখন আবাসিক প্রতি ইউনিট  (এক হাজার লিটার) পানির দাম ১০ টাকা ৫০ পয়সার স্থলে দিতে হবে ১১ টাকা ০২ পয়সা  বানিজ্যিক গ্রাহকদের  প্রতি ইউনিট  ৩৩ টাকা ৬০ পয়সার স্থলে দিতে হবে ৩৫ টাকা ২৮ পয়সা ঢাকা ওয়াসার জনসংযোগ র্কমর্কতা আব্দুল কাদরে বলনে, বিষয়ে  ভিবিন্ন  জাতীয় দৈনিক পত্রিকায়  বিজ্ঞপ্তি  প্রকাশ করে জানানো হইয়েছে।  তিনি  আরও বলেন, ওয়াসার পানির উৎপাদন খরচ পরিচালনা  ব্যয় বৃদ্ধি পাওয়াসহ অন্যান্য কারণে আগামী ১লা জুলাই থেকে  আবাসিক বানিজ্যিক  সংযোগ প্রতি হাজার লিটার পানির মূল্য শতাংশ সমন্বয় করে যথাক্রমে ১০ দশমিক ৫০ টাকার স্থলে ১১ দশমিক ০২ টাকায় এবং ৩৩ দশমিক ৬০ টাকার স্থলে ৩৫ দশমিক ২৮ টাকায় নির্ধারন করা হচ্ছে বলে জানা গেছে।

সদ্ধিান্ত মিটারবিহিন  হোল্ডিং, গভীর নলকূপ, নির্মাণাধীন ভবন এবং নূন্যতম বিলসহ সব প্রকার (পানি পয়ঃ) অভকিররে ক্ষেত্রে  র্কাযকর হবে।

ওয়াসা সূত্রে জানা গেছে,  জুলাই থেকে পানরি দাম বাড়ানোর বিষয়ে  র্বোড সভায় সিধান্ত হয়েছে ওয়াসা আইন ১৯৯৬এর ২২ ধারা অনুযায়ী ওয়াসা র্বোড প্রতিবছর শতাংশ হারে পানির দাম বাড়াতে পারে। পানির উৎপাদন খরচ পরিচালনা ব্যয় বেড়েছে তাই দাম বাড়ছে।

নারায়নগঞ্জ জেলার বন্দররে সিটির্কপোরশেন এর বিভিন্ন এলাকায় পানিতে ময়লা র্দুগন্ধ র‍য়েছে বলে বাসিন্দাদের  অভযিোগ রইয়েছে।তাছাড়া নারায়নগঞ্জ শহরের বিভিন্ন এলাকায় পানিতেও  রয়েছে  র্দুগ্নধ পানির দাম বাড়াতে হলে পানির মান ভালো করার কথা বলেছেন শহরের বাসিন্দারা তারা বলেন, ওয়াসার পানির গন্ধরে জন্য গোসল র্পযন্ত ঠিকভাবে করা যায় না অথচ সেই পানির দাম বাড়াতে ওয়াসা কখনো  ভুল করে না

আমলা পাড়ার বাসিন্দা  এক বলেন, প্রতি মাসে ওয়াসার পানির বিল দিতে  হয় হাজার টাকার ওপর এবার আরও বেশি দিতে হবে। কিন্তু রান্না খাওয়ার জন্য বিশুদ্ধ পানি সংগ্রহ করতে প্রতি মাসইে বারতি  টাকা গুনতে হয়

ব্যাপারে কনজ্যুমারস অ্যাসোসিয়ন অব বাংলাদশেরে (ক্যাব) সভাপতি গোলাম রহমান বলনে, ‘আমরা মনে করি ওয়াসার পানির মূল্যবৃধির অন্যতম কারণ হচ্ছে র্দুনীতি অব্যবস্থাপনা এসব ক্ষেত্রে  চোর ধরতে পারলে ঘন ঘন পানির দাম বাড়াতে হবে না একটি নিরপক্ষে স্বাধীন সংস্থাকে দায়িত্বে দিয়ে গণশুনানির মাধ্যমে পানির মূল্য নির্ধারণ করা উচিত