মাদক নিয়ন্ত্রনে জিরো ট্রলারেন্স, শিশু ও নারী নির্যাতনে, সন্ত্রাস, জবর দখলে কাউকে ছাড় নাই

559

সময়ের চিন্তা ডট কমঃ গতকাল যশোর থেকে নারায়ণগঞ্জে পুলিশ সুপার হিসেবে যোগদান করেছেন আনিসুর রহমান বিপিএম। ২০ই আগষ্ট সোমবার বেলা ৩.৩০মিনিটে পুলিশ সুপার কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে সাংবাদিকদের সাথে মত বিনিময়ে আনিসুর রহমান বলেন মাদক নিয়ন্ত্রনে জিরো ট্রলারেন্স, শিশু ও নারী নির্যাতনে, সন্ত্রাস, জবর দখলে কাউকে ছাড় নাই।

জানা গেছে, জেলায় নতুন পুলিশ সুপার হিসেবে যোগ দেয়া মো. আনিসুর রহমান বিপিএম মাস্টার্স ডিগ্রি অর্জনের পর ২০০১ সালের ৩১মে পুলিশ বাহিনীতে যোগদান করেন। তিনি যশোরে দায়িত্ব পালনের পূর্বে নোয়াখালীতে কর্মরত ছিলেন। তিনি গোপালগঞ্জের কাশিয়ানি থানার শংকর পাশা গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্ম গ্রহণ করেন। ১৯৯০ সালে বিএফ শাহিন স্কুল এন্ড কলেজ থেকে আনিসুর রহমান মানবিক বিভাগে থেকে এসএসসি পাশ করেন।ঢাকা কলেজ থেকে এইচএসসি পাশ করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক ডিগ্রী নেন।

২০১৪ সালে তিনি যশোরের পুলিশ সুপার হিসেবে যোগদান করেই অভয়নগরের আলোচিত সাম্প্রদায়িক সমস্যায় আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসেন। সংখ্যালঘু হিন্দু সম্প্রদায়ের ওপর হামলাকে কঠোর হস্তে দমন করেন। মো. আনিসুর রহমান বিপিএম যশোরে দায়িত্ব পালনকালীন সময়ে উল্লেখ করার মতো অনেক কিছু করেছেন। তিনি উড়ন্ত ছিনতাই বাহিনীকে নিয়ন্ত্রণে এনেছেন। তার দায়িত্ব পালনকালীন সময়ে জেলায় ব্যাপক মাদক ও অস্ত্র উদ্ধার হয়েছে। ঐ জেলার মাদক সম্রাট দেবী, তারেক, রোমা, জায়েদাকে নিয়ন্ত্রণে এনেছেন। কমিউনিটি পুলিশিং কাজেও তিনি অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছেন।

আনিসুর রহমান মতবিনিময় সভায় বলেন, মাদক নিয়ন্ত্রনে জিরো ট্রলারেন্স ভুমিকা পালন করবেন, শিশু ও নারী নির্যাতনে, সন্ত্রাস, জবর দখলে কাউকে ছাড় দিবেন না তিনি। পুলিশের কাজ জনগণের জীবন ও সম্পদ রক্ষা করা।নারায়নগঞ্জবাসীকে নিরাপদ রাখার জন্য সব কিছু করবেন সদ্য যোগদান করা পুলিশ সুপার।

মাদক ব্যবসায় জড়িত কোন পুলিশ সদস্যকেও ছাড় দিবেন না তিনি। কোন পুলিশ সদস্য যদি কাউকে মাদক দিয়ে ফাসাতে চায় বা ফাদে ফেলতে চায় তাহলে তার বিরোদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান তিনি। মাদক, সন্ত্রাস, জবর দখল ঠেকাতে সাংবাদিকদের সহযোগিতা কামনা করেন তিনি।

পুলিশ বাহিনীতে কাজ করার সাথে সাথে তিনি একটি সাপ্তাহিক পত্রিকাও পরিচালনা করেন এই সুযোগ্য পুলিশ সুপার।