জাতীয় পার্টির টিকিট নিয়ে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেলিম ওসমানের বিজয়ী হওয়া অসম্ভব

547

সময়ের চিন্তা ডট কমঃ নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের  মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী ও আওয়ামীগের স্থানীয় নেতৃবৃন্দের সাথে শীতল সম্পর্কের উন্নতি না ঘটাতে পারলে নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনে জাতীয় পার্টির টিকিট নিয়ে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেলিম ওসমানের বিজয়ী হওয়া অসম্ভব বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।

বিগত দিনের সাংসদ সেলিম ওসমানের রাজনৈতিক গতিবিধি পর্যালোচনা করে রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলেন, নির্বাচনে জয়ী হতে হলে সেলিম ওসমানকে আওয়ামীলীগ ও জাতীয় পার্টি উভয় ঘরের সাথেই বৈরী সম্পর্কের উন্নতি করতে হবে। কেবলমাত্র শুধু মনোনয়ন টিকিট প্রাপ্তিই নয়, বিএনপি যদি অংশগ্রহণ করে তবে নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থীর সাথেও লড়তে হবে। কিন্তু সবার আগে  সেলিম ওসমানকে জাতীয় পার্টির মনোনয়ন টিকিট আনতে লড়তে হবে প্রয়াত সাংসদ নাসিম ওসমানের স্ত্রী পারভীন ওসমানের সাথে।

আওয়ামীলীগ, জাতীয় পার্টি ও বিএনপি তিনদলেই জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থীতার জন্য একাধিক প্রার্থী রয়েছে।সেলিম ওসমান ছাড়াও তিন দলের সম্ভাব্য প্রার্থীরাই মনোনয়ন টিকিটের আশায় বেশ আগে থেকেই মাঠে নেমেছেন। তাই সেলিম ওসমানের জন্য জাতীয় পার্টি থেকে  মনোনয়ন টিকিট বেশ দুরুহ কাজ হয়ে পড়েছে ।

২০১৪ সালের ৩০ এপ্রিল হঠাৎ নাসিম ওসমানের মৃত্যুর পর উপ-নির্বাচনে জাতীয় পার্টির জয়ের ধারা অব্যাহত ছিল। উপ-নির্বাচনে জাতীয় পার্টি প্রার্থী হিসেবে নির্বাচিত হন প্রয়াত সাংসদ নাসিম ওসমানের ছোট ভাই একেএম সেলিম ওসমান। সে নির্বাচনে সাবেক সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক আহ্বায়ক এসএম আকরাম স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন।

এবার জাতীয় পার্টি থেকে মনোনয়ন টিকিট পেতে সেলিম ওসমানকে প্রতিযোগিতা করতে হবে তাঁরই বড় ভাই প্রয়াত সাংসদ নাসিম ওসমানের স্ত্রী পারভীন ওসমানের সাথে। এবারের মতো আওয়ামীলীগের স্থানীয় নেতারা একাট্টা হয়ে নৌকার প্রার্থীর জন্য কখনো চেপে ধরেন নি।সেলিম ওসমানের জন্য এই পরিসংখ্যানও একটি বিশেষ বার্তা মনে করেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।

এছাড়া বেশ প্রস্তুতি নিয়ে মাঠে রয়েছেন জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ব্যবসায়ী জয়নাল আবেদিন। গত নির্বাচনে সেলিম ওসমানকে ছাড় দিলেও এই নির্বাচনে কোনভাবেই পারভীন ওসমান পেছনে না আসারই পূর্বাভাস দিচ্ছেন বলে অনেকে মনে করেন। অন্যদিকে জয়নাল আবেদিন  জাতীয় পার্টির জেলা ও মহানগর কমিটি পুনর্গঠনের কাজে হাত দিয়েছেন বেশ ক’মাস আগেই। অনেকে  ধারণা করেন প্রয়াত সাংসদ নাসিম ওসমানের স্ত্রী পারভীন ওসমান এবং ছেলে আজমেরী ওসমানের নির্দেশেই হঠাৎ জয়নাল আবেদিন এতোটা প্রস্তুতি নিয়ে মাঠে নেমেছেন। আর নামার সাথে সাথেই পেয়ে গেছেন জেলার জাতীয় পার্টির নেতা হিসেবে বিশেষ খ্যাতি।

তাছাড়া  সেলিম ওসমান একাদশ জাতীয় নির্বাচনে মনোনয়নের চেষ্টা করবেন কি করবেন না তা নিয়ে কোন মাথাব্যথা নেই বলে জানান জেলা আওয়ামীলীগের এক মনোনয়ন প্রত্যাশী নেতা। তিনি বলেন, এবারের নির্বাচনে জাপাকে কোন ছাড় দেয়া হবে না এটিই শেষ কথা। সেলিম ওসমানের কি জনপ্রিয়তা আছে তা নাসিকের ১১ নং ওয়ার্ড থেকে ২৭ নং ওয়ার্ড এবং দুইটি উপজেলার ৭টি ইউনিয়ন ঘুরলেই বোঝা যায়।

জেলা আওয়ামীলীগের নেতা আর বলেন  তিনি একসাথে বসতে না পেরে বেশ কয়েকমাস আমাদের দলের জনপ্রিয় মেয়রকে যেভাবে আক্রমন করছেন সেগুলোর উত্তর আমরাও দিতে পারি। দলীয় শৃঙ্খলা নষ্ট হবে ভেবে আমরা তা করি না। একটি কথাতেই দৃঢ় প্রতিজ্ঞ আছি আমাদের দল থেকে প্রার্থী যাকেই দেয়া হবে আমরা তার পক্ষেই কাজ করবো এবং  আমরা নৌকাকে বিজয়ী করতে প্রস্তুত আছি।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা মনে করছেন, মেয়র আইভীর সাথে সেলিম ওসমানের সম্পর্কের বৈরিতা তাকে রাজনৈতিক মাঠ থেকে ছিটকে দিয়েছে।স্কুল শিক্ষক শ্যামল কান্তি ভক্তকে লাঞ্ছনার ঘটনায় সেলিম ওসমান সমালোচনার জালে জর্জরিত হয়ে পড়েছিলেন। তবে  নাসিকের বাজেট অনুষ্ঠানে হঠাৎ উপস্থিত হয়ে নগর ভবনের সামনে ট্রাক স্ট্যান্ড উচ্ছেদ করে মেয়রের অভিবাদনে সেই সমালোচনার আগুনে জল ঢেলে দিয়েছিল। জনগণকে আকৃষ্ট করতে সেলিম ওসমানের বর্তমান রাজনৈতিক স্ট্যান্টবাজি করার চেষ্টা মনোনয়ন প্রাপ্তির দৌড়ে  টেকবে না বলে মনে করেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।

জাতীয় পার্টির এক নেতা জানান, সেলিম ওসমান সাধারণ তৃণমূল নেতাকর্মী থেকে বিচ্ছিন্ন। যেখানে নাসিম ওসমান ছিলেন গণমানুষের নেতা। তার এই নেতৃত্বগুণের কারণে সাধারণ মানুষ নাসিম ওসমানকে এতটা ভালোবাসত।

মনোনয়নের ব্যাপারে সেলিম ওসমান বলেছেন সেপ্টেম্বরে সিদ্ধান্ত নেবেন। তবে সাধারণ নেতাকর্মীদের প্রাণের দাবি  নারায়নগঞ্জ ৫ আসনে প্রয়াত সাংসদ নাসিম ওসমানের স্ত্রী পারভীন ওসমানকেই এবারের নির্বাচনে প্রার্থীতা করার সুযোগ দেয়া হোক। এরপর বাকি কাজ আমাদের। আমরা তাকে বিজয়ী করে আনবো। জাতীয় পার্টিতে প্রয়াত নাসিম ওসমানের মৃত্যুর পর রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব হিসেবে পারভীন ওসমানকে দলীয় নেতাকর্মীসহ জনগণ বেশি পছন্দ করছেন। ব্যবসায়ী নেতা সেলিম ওসমানের যদি ক্ষমতার  প্রয়োজন না  থাকে তবে পারভীন ওসমানকে জাতীয় পার্টির প্রার্থী হিসেবে সমর্থন দেওয়া সমস্যা হওয়ার কথা নয়। তবে এবার সেলিম ওসমানকে মনোনয়ন  দিলে লাঙ্গলের ভরাডুবি হবে।