ঢাকা জেলার দোহার থানাধীন মৈনট ঘাট এলাকা হতে অবৈধ ২০০টি স্বর্ণবারসহ আন্তর্জাতিক চোরাচালান চক্রের ০৫ সক্রিয় সদস্যকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১১

385

সময়ের চিন্তা ডট কমঃ র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে সবসময় বিভিন্ন ধরণের অপরাধীদের গ্রেফতারের ক্ষেত্রে অত্যন্ত অগ্রণী ভূমিকা পালন করে আসছে। র‌্যাবের সৃষ্টিকাল থেকে এ পর্যন্ত জঙ্গি, অপহরণকারী, অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী, ছিনতাইকারী, চাঁদাবাজ, প্রতারকচক্র, মাদক ব্যবসায়ী, এজাহারনামীয় আসামী, চোরাকারবারীদের গ্রেফতার করে সাধারণ জনগণের মনে আস্থা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে। এছাড়াও সময়ে সময়ে সংগঠিত বিভিন্ন অপরাধে জড়িত আসামীদের আইনের আওতায় এনে সাধারণ জনমনে স্বস্থি ফিরিয়ে আনতে র‌্যাব সদা তৎপর রয়েছে।

একটি সংঘবদ্ধ চোরাচালানকারী চক্র আন্তর্জাতিকভাবে স্বর্ণ চোরাচালানের অংশ হিসেবে বাংলাদেশকে ট্রানজিট হিসাবে ব্যবহার করে আসছে। এই সকল চোরাচালানকারী চক্রকে আইনের আওতায় আনার লক্ষ্যে র‌্যাব-১১ এর একটি বিশেষ টিম গোয়েন্দা নজরদারী অব্যাহত রাখে।

এরই ধারাবাহিকতায় গত ০৭ সেপ্টেম্বর ২০১৮ তারিখ র‌্যাব-১১ এর একটি আভিযানিক দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে যে, এক শ্রেণীর অসাধু স্বর্ণ চোরাকারবারী চক্রের কিছু সদস্য চোরাচালানের মাধ্যমে  অবৈধ উপায়ে স্বর্ণবার অভিনব কায়দায় ও সু-কৌশলে ঢাকা হতে মৈনট ঘাট ব্যবহার করে যশোর হয়ে ভারতে পাচারের জন্য বহন করে নিয়ে যাচ্ছে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-১১ এর একটি আভিযানিক দল ০৮০০ ঘটিকায় ঢাকা জেলার দোহার থানাধীন মৈনট ঘাট এলাকায় একটি চেকপোষ্ট স্থাপন করে। উক্ত চেক চলাকালীন ০২টি ত্রি-হুইলার সিএনজিযোগে চেকপোষ্টের অদূরে নেমে সাধারণ যাত্রীবেশে সু-কৌশলে ঘাট পারাপারের জন্য ঘাটের দিকে অগ্রসর হতে থাকে। অতপরঃ র‌্যাবের চেকপোষ্ট দেখতে পেয়ে দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করলে ২০০ (দুইশত) টি স্বর্ণের বারসহ আন্তর্জাতিক স্বর্ণ চোরাচালান চক্রের নিমোক্ত ০৫ (পাঁচ) জন সদস্যকে হাতে নাতে আটক করা হয়।

ক।  মোঃ মহসীন খান(৪৭), পিতা-মৃত আলেপ খান, সাং-শিবরামপুর, থানা-শ্রীনগর, জেলা-মুন্সীগঞ্জ, খ।ফিরোজ আহম্মেদ(৩৪),পিতা-মোঃ শাহ আলম, সাং গালিমপুর/গোবিন্দপুর, থানা-নবাবগঞ্জ,জেলা-ঢাকা,

গ। মোঃ সিদ্দিীক (৪৬), পিতা-মৃত ইয়াকুব শেখ, সাং-মদনখালী (কালাইমারা), থানা-নবাবগঞ্জ, জেলা-ঢাকা,

ঘ।মোঃ মিজান(৩৪), পিতা-শেখ জামাত আলী, সাং-মদনখালী (কালাইমারা), থানা-নবাবগঞ্জ, জেলা-ঢাকা,

ঙ।আমিনুল ইসলাম(৪৭), পিতা-শেখ সার্থক আলী, সাং-মদনখালী (মদনখালী), থানা-শ্রীনগর, জেলা- মুন্সীগঞ্জ

গ্রেফতারকৃত আসামীদের অভিনব কায়দায় তৈরীকৃত কোমরের বেল্ট ও জুতার ভিতর হতে স্বর্ণের বার গুলি উদ্ধার করা হয়। এছাড়াও, ০৫ টি মোবাইল ফোন সহ নগদ ২৬,০০০/- টাকা উদ্ধার করা হয়। ২০০টি স্বর্ণের বারের ওজন সর্বমোট ২৩ কেজি ৩২৮ গ্রাম, স্বর্ণের গুণগতমান ২৪ ক্যারেট এবং বিশুদ্ধতার মান ৯৯.৯৯%। যার বর্তমান বাজার মূল্য আনুমানিক ৯,০০,০০,০০০/-  (নয় কোটি) টাকা ।

এছাড়াও ধৃত আসামীদের জিজ্ঞাসাবাদে আরো জানায় যে, তারা দীর্ঘ সময় যাবৎ উল্লেখিত চোরাচালানের সাথে সক্রিয়ভাবে জড়িত। চোরাচালানের মাধ্যমে আনিত স্বর্ণের বার তারা দেশের সীমান্ত দিয়ে পার্শ্ব¦বর্তী দেশে পাচার করে আসছে বলে জানায়।এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন আছে।