বন্দরে ছোট ভাইয়ের অস্ত্রাঘাতে বড় ভাই নিহতের ঘটনায় থানায় মামলা,ঘাতক হালিম আটক

416

বন্দর প্রতিনিধিঃ বন্দরে ছোট ভাইয়ের অস্ত্রাঘাতে বড় ভাই নিহতের ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। শুক্রবার দুপুরে নিহত জহিরুল ইসলামের স্ত্রী রহিমা বেগম বাদী হয়ে দেবর হালিম মিয়াকে আসামী করে বন্দর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

ধামগড় ফাড়ী পুলিশ গতকাল রাতেই ঘাতক ছোটভাই হালিমকে তার বসতঘরের পার্শ্বের বাড়ী থেকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।

মামলায় এজাহারে উল্লেখ করা হয়,ধামগড় ইউনিয়নস্থ ইস্পাহানী বাজার এলাকার নাজির মিয়া ও তার ছোট ছেলে হালিমের সাথে পিতা-পুত্রের দীর্ঘদিন ধরে পারিবারিক বিরোধ চলছিল। প্রায়ই তাদের মধ্যে কোন না কোন বিষয় নিয়ে ঝগড়া-বিবাদ অব্যাহত থাকত। এর ধারাবাহিকতায়,গত বৃহস্পতিবার বিকেলে বন্দর উপজেলার ধামগড় ইউনিয়নস্থ ইস্পাহানী বাজার এলাকার নাজির মিয়ার বড় ছেলে জহিরুল ইসলাম বাড়িতে অযথা পানির  ট্যাংকিতে পানি ছেড়ে রাখে। এতে পানির অপচয় হওয়ায় পিতা নাজির মিয়া ছেলেকে পানির ট্যাপ বন্ধ করতে বলেন। এতে পিতা-পুত্রে ঝগড়ার সৃষ্টি হয়। ঝগড়ার এক পর্যায়ে নাজির মিয়ার ছোট ছেলে হালিম ধারালো অস্ত্র দিয়ে বড় ভাই জহিরুল ইসলামকে বুকে,পেটে ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে ছুরিকাঘাত করে। আহত জহিরুল ও তার পিতা নাজির মিয়ার চিৎকারে আশপাশের লোক এগিয়ে আসার পূর্বেই ছোট ছেলে হালিম পালিয়ে যায়। স্থানীয়দের সহায়তায় জহিরুলকে মুমূর্ষু অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

নিহত জহিরুলের মরদেহ শাহবাগ থানা পুলিশ সুরতহাল রিপোর্ট শেষে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে।

এ ব্যাপারে বন্দর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। ধৃত ঘাতক হালি বন্দর থানা হাজতে আটক আছে বলে জানা গেছে।