শামীম ওসমানের আহবানে সাড়া দিয়ে শনিবারের মহাসমাবেশকে সফল করার সর্বাত্মক প্রস্তুতি গ্রহন

574

সময়ের চিন্তা ডট কম: নারায়ণগঞ্জ জেলার প্রতিটি থানা এলাকায় আওয়ামীলীগ ও অংগ সংগঠন থেকে শুরু করে স্বাধীণতার স্বপক্ষের সকল সংগঠন শামীম ওসমানের আহবানে সাড়া দিয়ে শনিবারের মহাসমাবেশকে সফল করার সর্বাত্মক প্রস্তুতি গ্রহন করেছে বলে জানিয়েছেন সময়ের চিন্তা ডট কমের থানা প্রতিনিধিরা। এক্ষেত্রে পিছিয়ে নেই নারী নেত্রীরাও। বিপুল সংখ্যক নারী এই মহাসমাবেশে মঞ্চের প্রথমাংশ জুড়ে অবস্থান নেবেন বলে জানিয়েছেন তারা। বর্তমান রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে ২৭ অক্টোবরের মহাসমাবেশ কতখানী ভূমিকা রাখবে এমন প্রশ্নের জবাবে বলেছেন, এবিষয়ে কোন মন্তব্য করতে চাইনা, কোন প্রতিক্রিয়াও নেই। তবে সমাবেশটি ব্যক্তিকেন্দ্রীক, এটি দলের সর্বসম্মত সিদ্ধান্তে হয়নি। এদিকে শীর্ষ নেতৃবৃন্দ আসতে অস্বীকৃতি জানালেও থেমে নেই মহাসমাবেশ সফল করার প্রস্তুতি।

মহাসমাবেশে উপস্থিত থাকার বিষয়ে জানতে নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আবদুল হাইয়ের মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ব্যস্ত আছেন বলে ফোন রেখে দেন। একইভাবে মহানগর আওয়ামলিীগের সভাপতি আলহাজ্ব আনোয়ার হোসেনও ব্যস্ত আছেন বলে ফোন রেখে দেন। এরপর বহুবার চেষ্টা করেও তাদের পাওয়া যায়নি। তবে এব্যাপারে নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও শামীম ওসমানের এক সময়কার ঘনিষ্ট সহচর এড. খোকন সাহা প্রতিবেদককে বলেন, আমি এখনো দাওয়াত পাইনি। আগে দাওয়াত পাই, তারপর চিন্তা করবো যাবো কিনা। সমাবেশ সম্পর্কে প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে তিনি বলেন, সমাবেশ যিনি বা যারা করছেন তাদের জিজ্ঞেস করুন। এব্যাপারে আমার কোন প্রতিক্রিয়া নেই।

নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এবং এমপি শামীম ওসমানের আরেক ঘনিষ্ট রাজনৈতিক সহচর আবু হাসনাত শহীদ বাদলকে প্রশ্ন করা হয়েছিলো ২৭ অক্টোবরের সমাবেশে যাবেন কি? তিনি বলেন, আওয়ামীলীগ যেখানে ভিপি বাদল সেখানে। আমি বর্তমানে হাসপাতালে ভর্তি আছি। সুস্থ্য থাকলে অবশ্যই যাবো। তবে আমার মতামত হচ্ছে নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগের সবাইকে নিয়ে মহাসমাবেশটি করা হলে অনেক ভালো হতো। দলে এই মুহুর্তে ঐক্যের প্রয়োজন খুব বেশী। স্বাধীণতা বিরোধীরা ছোবল মারতে প্রস্তুতি নিচ্ছে, এই মুহুর্তে ঐক্যের বড়ই প্রয়োজন।

শামীম ওসমানের এক সময়ের ঘনিষ্ট রাজনৈতিক সহচর ও আওয়ামীলীগের জাতীয় কমিটির সদস্য এড. আনিসুর রহমান দীপুর কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, আমি চট্রগ্রাম যাচ্ছি, তাই সমাবেশে থাকতে পারছিনা। সমাবেশ সম্পর্কে প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমার কোন প্রতিক্রিয়াও নেই।

এদিকে জেলা ও মহানগর আওয়ামীলীগ ছাড়াও নারায়ণগঞ্জের আরেক প্রভাবশালী নেত্রী সিটি মেয়র সেলিনা হায়াত আইভী সমর্থক নেতা-কর্মীরাও এই মহাসমাবেশে যোগদান করছেন না বলে জানিয়েছেন।