ফতুল্লায় মাদক বিক্রিতে বাধা দেওয়ায় কিশোরকে পিটিয়ে গুরুতর জখম!

453

ষ্টাফ রিপোর্টার: নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লার দেওভোগ মাদ্রাসা তসিলিম পট্ট্রি এলাকার চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ীদের মাদক বিক্রিতে বাধা দেওয়ায় এবং এলাকায় অবস্থান না করার জের ধরে আসিফ (১৬) নামের এক কিশোরকে এলোপাথারী ভাবে পিটিয়ে মারাতœক জখম করার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় এলাকার চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী ও সন্ত্রাসী তাছলিম ও রবিউল গং সহ অজ্ঞাত আরো ৬/৭জনের বিরুদ্ধে! এ ঘটনায় ফতুল্লা মডেল থানায় আসিফের মা মীনা বেগম বাদী একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

বৃহস্পতিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) সন্ধা ৬টায় ফতুল্লার দেওভোগ মাদ্রাসা তসিলিম পট্ট্রি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। অভিযুক্তরা হলেন, স্থানীয় দেওভোগ মাদ্রাসা তাছলিম পট্ট্রি এলাকার মৃত ফিরোজ মিয়ার ছেলে তাছলিম (৪২) ও রবিউল (৩৭) সহ অজ্ঞাত আরো ৬/৭জন।

লিখিত অভিযোগের বিবরনে মীনা বেগম জানান, গত ২৫ অক্টোবর সন্ধা ৬টার দিকে তার ছেলে আসিফ তার খালার বাসায় যাওয়ার সময় দেওভোগ মাদ্রাসা তসিলিম পট্ট্রি এলাকায় বেড়াতে যাওয়ার সময় তাকে একা পেয়ে উক্ত এলাকার চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী ও সন্ত্রাসী তাসলিম গংরা কোন কিছু বুঝে উঠার পূর্বেই তার ছেলেকে  লাঠি সোঠা, লোহার রড় ও হকিষ্টিক দিয়ে এলোপাথারী ভাবে পেটাতে থাকে। এ সময় তার ডাক চিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে আসলে উক্ত মাদক ব্যবসায়ী ও সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। যাওয়ার সময় খুন করার হুমকি দিয়ে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে সস্ত্রাসীরা। পরে আশপাশের লোকজন তার ছেলে আসিফকে উদ্ধার করে গুরুতর আহত অবস্থায় শহরের  ১’শ শয্যাবিশিষ্ট নারায়ণগঞ্জ ভিক্টোরিয়া জেনালের হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করান।

তিনি আরো জানান, উক্ত এলাকার তাছলিম গংরা স্থানীয় এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে মাদক বিক্রি ও সন্ত্রাসী কর্মকান্ড চালিয়ে আসছিলো। তাদের বিরুদ্ধে ফতুল্লা মডেল থানা সহ বিভিন্ন থানায় মাদক, নারী ব্যবসা সহ নানা ধরনের অপকর্মের সাথে জরিত রয়েছে।

ফতুল্লা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ শাহ মোঃ মঞ্জুর কাদের পিপিএম এর নিকট এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি জানান, অভিযোগ প্রমানিত হলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।