সোনারগাঁয়ে ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করায়- কিশোর গ্যাংয়ের হামলায় নারীসহ আহত ২

71

বিশেষ প্রতিনিধি :নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও উপজেলার বৈদ্যের বাজার ইউনিয়নের বৈদ্যের বাজার ট্রলার ঘাটে বিডি ক্লিনের ৮জন নারী সদস্যকে ইভটিজিং করেছে ২০-২৫জনের একটি কিশোর গ্যাং বাহিনী। এ সময় তাদের সঙ্গে থাকা পুরুষ সদস্যরা প্রতিবাদ করলে রাহুল (১৭) নামে এক কিশোর গ্যাংয়ের লিডারের নেতৃত্বে বিডি ক্লিনের সদস্যদের উপর দুই দফা হামলা চালিয়ে মারাত্মকভাবে আহত করে। এতে বিডি ক্লিনের সদস্য হাসিবুল ইসলাম (২০) নারী সদস্যসহ ইরা (২৩)দুই জন মারাত্মকভাবে আহত হয়।

শুক্রবার (২৫ মে) সন্ধ্যা পৌনে ৭টার দিকে উপজেলার বৈদ্যের বাজার ট্রলার ঘাটে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

আহতদের সোনারগাঁও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়ে দেয়। আহতরা বর্তমানে ঢাকায় চিকিৎসাধীন রয়েছে।

এব্যাপারে সোনারগাঁও বিডি ক্লিনের সমন্বয়ক কামরুজ্জামান রানা বাদী হয়ে আল আমিন, সৌরভ, রাহুল, তামিম, সিজান, প্রহর বর্মণ, রাসেলসহ অজ্ঞাত ১৪-১৫জনকে আসামী করে সোনারগাঁও থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে।

সোনারগাঁও বিডি ক্লিনের সমন্বয়ক কামরুজ্জামান রানা জানান, প্রতি শুক্রবারের মতই বিডি ক্লিনের সদস্যরা সোনারগাঁওয়ের বিভিন্ন এলাকায় ময়লা আবর্জনা পরিষ্কার করে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় গত শুক্রবার বেলা ৩টার দিকে ট্রলার দিয়ে নুনেরটেক এলাকার (মায়াদ্বীপ) গিয়ে পরিষ্কার করতে যায়। পরে ফিরে আসার সময় সন্ধ্যার আগে বৈদ্যের বাজার ট্রলার থেকে ঘাটে নেমে গাড়ির জন্য অপেক্ষা করতে থাকে বিডি ক্লিনের লগো সম্বলিত টি শার্ট পরিহিত সদস্যরা। এদিকে আল আমিন (১৯) নামে এক যুবক প্রথমে নারী সদস্যদের ইভটিজিং ও বিভিন্নভাবে তাদের উত্যক্ত শুরু করে। এ সময় বিডি ক্লিনের পুরুষ সদস্যরা এর প্রতিবাদ করলে, কিশোর গ্যাংয়ের লিডার রাহুলের নেতৃত্বে ২৫-৩০জন সন্ত্রাসী এসে তাদের উপর হামলা চালায়। এ সময় নারী সদস্যকে পিটিয়ে আহত করে শ্লীলতাহানী করে পরে হাসিবুল ইসলাম এগিয়ে আসলে তাকেও পিটিয়ে মারাত্মভাবে আহত করে।

সোনারগাঁও থানার সেকেন্ড অফিসার পঙ্কজ কান্তি সরকার বলেন, ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করায় হামলার ঘটনায় একটি মামলা নেয়া হয়েছে। রাতেই হামলাকারীদের মধ্যে সৌরভ (২৫) নামে একজনকে গ্রেফতার করে আজ আদালতে পাঠানো হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (খ সার্কেল) শেখ বিল্লাল হোসেন বলেন, ইভটিজিং ও হামলার ঘটনায় জড়িত বাকিদের গ্রেফতারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত আছে।
এদের আইনের আওতায় এনে সুবিচার নিশ্চিত করা হবে।