আলোচিত জাকির হত্যা মামলার আসামীরা ব্যাপোরোয়া

304

আশিকুজ্জামানঃনারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ের মেঘনা নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করে উপার্জিত টাকা ভাগ বাটোয়ারা নিয়ে বিরোধের জের ধরে ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি নবী হোসেনের নেতৃত্বে হামলা চালিয়ে জাকির হোসেন নামের এক যুবককে গত ১ডিসেম্বর রাতে হত্যা করা হয়। হত্যাকান্ডের ১৮ দিন পার হয়ে গেলেও আসামীদের গ্রেফতার না করায় তারা ব্যাপোরোয়া হয়ে পরেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

নিহত জাকির হোসেন আনন্দবাজার টেকপাড়া আমিরাবাদ এলাকার মৃত আরজ আলীর ছেলে। ঘটনায় বাদি হয়ে সোনারগাঁ থানায় মামলা দায়ের করেন জাকিরের ভাই মনির হোসেন। তিনি জানান, গত কয়েকদিন যাবত মামলার অন্যতম আসামী মৃত শহিদুল্লা মেম্বারের ছেলে নবী ও নজরুল এবং আয়েব আলী মেম্বারের ছেলে সিরাজ আমাকে আমার পরিবারকে মামলা তুলে নিতে হুমকি দিচ্ছে। আমি মামলা তুলে না নিলে পরিবারের সদস্য সহ আমাকে ঘুম করে দেয়ার কথা বলে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে আসছে।

উল্লেখ্য যে, আনন্দবাজার ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি নবী হোসেনের নেতৃত্বে হামলায় আহত হয়েছিল টেকপাড়া আমিরাবাদ এলাকার নুর মিয়ার ছেলে আল-আমিন (৩৩) এবং ইয়ানুসের ছেলে আবু হানিফ (৩১)। তাদেরকেও বিভিন্ন ভাবে হুমকি দিয়ে আসছে নবী হোসেন সহ অন্যান্য আসামী ও তার আত্মীয়স্বজনেরা। সব মিলিয়ে মনির হোসেন এবং নিহত জাকিরের পরিবারসহ মামলার স্বাক্ষীরা সামাজিক ভাবে কোণঠাসা হয়ে জীবন যাপন করেছেন। তারা জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার, পুলিশ হেডকোয়ার্টার, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয় সহ বিভিন্ন জায়গায় দরখাস্ত করবেন বলেও জানান।

সোনারগাঁ থানার অফিসার ইনচার্জ মনিরুজ্জামান জানান, সোনারগাঁ থানা পুলিশের পক্ষ থেকে সোনারগাঁয়ের জাকির হত্যা মামলার আসামীরা পলাতক রয়েছে। তাদেরকে ঢাকাসহ সারা দেশে গ্রেফতারের সর্বোচ্চ চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। আসামী ও তাদের আত্মীয়স্বজনরা এলাকায় নাই।