সাংবাদিক নুরুজ্জামান মোল্লাকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা

64

সফিকুল ইসলাম ইমামঃ বন্দর প্রেসক্লাবের সহসভাপতি ও মানবজমিনের বন্দর প্রতিনিধি নুরুজ্জামান মোল্লাকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে সন্ত্রাসীরা। পুলিশ আহত সাংবাদিক নুরুজ্জামানকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠিয়েছে।

১৭ জুলাই রোববার বেলা ১১টায় বন্দর উপজেলার হালুয়াপাড়া এলাকায় ঘটনাটি ঘটেছে  বলে জানা যায়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, বন্দর কামতাল পুলিশ তদন্ত কেন্দ্র থেকে নিজ মোটরসাইকেল যোগে বাড়ি ফেরার পথে সন্ত্রাসীরা তাকে রাস্তায় একা পেয়ে এলোপাথারি কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা করে। কিছুক্ষণ পরে একই পথে পুলিশের গাড়ি চলে আসায় সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। পরে পুলিশ মারাত্মক আহত অবস্থায় সাংবাদিক নুরুজ্জামানকে উদ্ধার করে প্রথমে মদনপুর আরকে হাসপতালে পাঠায়। সেখান থেকে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়।

এ ব্যাপারে সাংবাদিক নুরুজ্জামানের স্ত্রী জানায়, নুরুজ্জামানের মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন অংশে কুপিয়ে ও ইট দিয়ে আঘাতের ফলে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হয়েছে। বর্তমানে তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

কামতাল তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ ইন্সিস্পেক্টর মাহবুব জানান, কমতাল হালুয়াপাড়া এলাকার মজিবর মিয়ার মেয়ে শেখ জামাল উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্রী এসএসসি পরীক্ষার্থী মাহমুদা (১৫) কোচিং করে বাড়ি ফেরার পথে সকাল ১০টায় সন্ত্রাসী কাইয়ূমের নেতৃত্বে অপহরণের চেষ্টা করে। এ সময় স্থানীয় লোকজনের বাধার মুখে ছাত্রীটি অপহরণকারীদের হাত থেকে রক্ষা পায়। এ ঘটনার সংবাদ পেয়ে কামতাল তদন্তকেন্দ্র পুলিশ ও সাংবাদিক নুরুজ্জামান ঘটনাস্থলে আসে। পুলিশ অপহরণে ব্যবহৃত গাড়ি জব্দসহ চালককে আটক করে। পরে সাংবাদিক নুরুজ্জামান তার নিজ মোটরসাইকেল যোগে বাড়ি ফেরার পথে অপহরণকারী সন্ত্রাসীরা তার উপর হামলা করে।

বন্দর থানার ওসি দিপক চন্দ্র সাহা বলেন, হামলায় জড়িতদের গ্রেপ্তারে পুলিশের অভিযান চলছে।