সাংবাদিক সুলতান মাহমুদকে প্রান-নাশ ও ডিজিটাল আইনে মিথ্যা মামলার হুমকি

52

তানভীর আহমেদ রাজীবঃ দুর্নীতির সংবাদ প্রকাশের জেরে অপরাধ বিচিত্রার সিনিয়র স্টাফ রিপোর্টার ও জাতীয় ভেজাল প্রতিরোধ ফাউন্ডেশন নারায়নগঞ্জ জেলা সভাপতি সাংবাদিক সুলতান মাহমুদকে প্রান-নাশ ও ডিজিটাল আইনে মিথ্যা মামলা করবে বলে হুমকি দিয়েছে অর্থপাচারকারী ও সরকারী রাজস্ব আত্নস্বাদকারী মোতাহার মাসুম শিকদার। এ ব্যাপারে সোনারগাঁও থানায় সাধারন ডায়েরি করা হয়েছে, নং ২৪ তারিখ ১/১২/২২. মোতাহার মাসুম একজন স্বীকৃত দুর্নীতিবাজ, সরকারী অর্থ আত্নস্বাদকারী ও পাচারকারী। মাসুম তার কোম্পানী দিয়ে সরকারের ভ্যাট, ইনকামটেক্স ফাকি দিচ্ছে বলে জানা যায়।

সাংবাদিক সুলতান মাহমুদ জিডেতে উল্লেখ্য করেন, মোতাহার মাসুম শিকদার(৪৫) পিতাঃমৃত খোরশেদ শিকদার গ্রামঃ কৃষ্ণপুরা পোঃ উদ্ধমগঞ্জ, থানাঃ সোনারগাঁ, জেলাঃ নারায়নগঞ্জ, সংবাদ প্রকাশের জেরে ২৯ নভেম্বর ২০২২ ইং তারিখে সোনারগাঁ মোগড়াপাড়া চৌরাস্তা আসলে নিম্মস্বাক্ষরকারী সাংবাদিক সুলতান মাহমুদকে কলাপাতা সুইটস এর সামনে গতিরোধ করে অশুভ আচরন করে ও প্রান নাশের হুমিকি দেয়। তাছাড়া বিগত ১৬ নভেম্বর কল করে বলে,“আপনি চেহেরার মধ্যে কাঠের চশমা পড়ে আমার বিরুদ্ধে যা লিখেছেন তা এখন প্রমান করতে পারবেন? প্রমান করতে পারবেন না, একটাও ঠিকাতে পারবেন না এখন, এখন ফাইলতো তৈরি হচ্ছে, আপনাকে এতদিন কিছু কই নাই, আমি এতদিন সু্যোগের অপেক্ষায় ছিলাম, আমার কাগজগুলি ফেরত আসুক, কালকে যান রংধনুতে, আপনারমত হলুদ সাংবাদিককে বাইন্দা পিটাইতা রাইক্ষা দিতে বলছি, আপনি কেন গেছেন রংধনুতে? আপনার সাহস কত বড়? আপনার বাপের সম্পত্তি এটা? হাড়ে হাড়ে টের পাওইয়া দিবু, আমি মাসুম শিকদার আমি হাড়ে হাড়ে টের পাওইয়া দিবু, আমি কার দয়ায়, করুনায় কি আমি সোনারগাঁ আছি, মিয়া? আমি সব ফাইল দিয়ে আসছি ব্যরিষ্টারের কাছে, আমার ইয়াটা বাইর অইলে… আপনার মমিন শিকাদারকে নিয়ে সামাল দিয়েন, দুইজনের নামের হবে…… আপনে বালের একটা পত্রিকা লইয়া আইছেন, লেইক্ষা লাইছেন, ২০ পয়সা লেওরা খাইছেন, এখন সামাল দিয়েন……চেটের বাল, আইসিটি মামলা হইতেছে… এতদিন কিছু বলি নাই কারন আপনাকে সুযোগ দিছিলাম, জম্মের হিসাব লওয়াইয়া দিবু…… অই হেরে লইয়া পারলে ছিরেন…….আইসিটি মামলা কারে কয় শিখাইয়া দিমু..।” অভদ্র ব্যবহার ও অকথ্য ভাষায় অনেক আজে বাজে কথাবলে ও গালাগালি করে, আমার কাছে অডিও রেকড গচ্ছিত আছে।