গণপরিবহনে যৌন নিপীড়ন প্রতিরোধে সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে মতবিনিময় সভা

26

আল আমিন নূরঃ বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ, নারায়ণগঞ্জ জেলার লিগ্যাল এইড উপ- পরিষদের উদ্যোগে “নারী ও কন্যা নির্যাতন বন্ধ করি, নতুন সমাজ নির্মাণ করি” এই শ্লোগানকে সামনে রেখে আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ’২০২২ উপলক্ষে গণপরিবহনে যৌন নিপীড়ন প্রতিরোধে সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে পরিবহন মালিক ও শ্রমিক ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দের সাথে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

শনিবার ৩ ডিসেম্বর ২০২২ তারিখ দুপুর ১২টায়

 বাস মালিক সমিতির কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এ সভায় সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ কেন্দ্রীয় সহ সভাপতি ও জেলার সভাপতি বীর নারী মুক্তিযোদ্ধা লক্ষ্মী চক্রব্রর্তী। 

মতবিনিময় সভায় মতামত ব্যক্ত করেন উৎসব ট্রান্সপোর্ট লি. এর চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোঃ সহিদুল্লাহ, পরিচালক মোঃ নাজিম উল্লাহ ও সহিদুর রহমান, সিটি বন্ধন পরিবহন লিঃ এর সালাউদ্দিন ও শফিকুল ইসলাম, জেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মোঃ শামসুজ্জামান, সহ-সভাপতি খাজা ইরফান আলী, সহ-সম্পাদক মোঃ রব্বানী,  মহিলা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট হাসিনা পারভীন, লিগ্যাল এইড সম্পাদক সাহানারা বেগম, সদস্য রাশিদা বেগম, অফিস সহকারী সুমী সরকার প্রমূখ। 

বক্তারা বলেন- জেলার যোগাযোগ ব্যবস্থায় সড়ক পরিবহনের ভূমিকা অন্যতম। বাংলাদেশে সামাজিক বন্ধন অত্যন্ত দৃঢ়। এখানে নারী ও পুরুষ, ছোট-বড় সকলে মিলেমিশে বসবাস করে আসছে। কিন্তু এখন এই বন্ধনে অশুভ শক্তি ভর করেছে। পুরুষ সমাজের কিছু সংখ্যক নরপশু নারী, অনেক সময় শিশু কন্যাদের নানাভাবে যৌন নিপীড়ন ও হয়রানি, হত্যা-ধর্ষণ করছে। এই অপরাধ পরিবহন সেক্টরেও হচ্ছে। চালক ও শ্রমিকেরা এসব অপরাধে জড়িয়ে পড়ছে। এই সব অপরাধ বন্ধ করতে হবে, বিচারের আওতায় আনতে হবে। নারী ও ছাত্রীদের নিরাপদ যাতায়াতের ব্যবস্থা করতে হবে, বাসে আসনের ব্যবস্থা করতে হবে, পুরুষ যাত্রীদের দ্বারাও নারী যাত্রীরা নিপীড়নের শিকার হন। সিট নিয়েও নারী যাত্রীরা হয়রানির শিকার হন। আমাদের দেশে  চলন্ত বাস থেকে যাত্রী নামানোর প্রবণতা লক্ষ্য করা যায়, বাস থামিয়ে নারী যাত্রীদের নামাতে হবে। এই বিষয়গুলো মালিকপক্ষের দেখভাল করতে হবেখ। মালিক ও শ্রমিক ইউনিয়নের নেতারা সব ধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দেন। এইভাবে সকলে মিলে একসাথে  দায়িত্বশীল ও সচেতনভাবে কাজ করতে হবে। তাহলে একদিন কা়ংক্ষিত লক্ষ্যে পৌঁছানো সম্ভব হবে।