হাইকোর্টের আদেশ অমান্য করে মোস্তফা জমি দখল করে

184

  1. নিজস্ব প্রতিনিধিঃ সোনারগাঁয়ে হাইকোর্টের আদেশ অমান্য করে আল মোস্তফার বিরুদ্ধে জায়গা দখলের অভিযোগ পাওয়া গয়েছে।  হাইকোর্টের আদেশ অমান্য করে রাতের আঁধারে হেরিটেজ পলিমার এন্ড ভেজিটেবলস লিমিটেড নামক একটি শিল্প প্রতিষ্ঠানের মালিক আল মোস্তফা ওরফে মোস্তফা কামালের বিরুদ্ধে অন্যের জমি দখল করে নেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

রবিবার (১৫ মে) সকাল ১০ ঘটিকায় সরেজমিনে উপজেলার আষাঢ়িয়ারচর এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, মোঃ আব্দুর রউফের ৩৫ শতাংশ জায়গা রাতের আঁধারে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করার প্রমাণ পাওয়া গেছে। এলাকায় চররমজান সানাউল্লাহ মৌজায় একটি দাগে ৩৫ শতাংশ কৃষি ও নাল জমির মালিকানা নিয়ে আদালতে মামলা বিচারপ্রক্রিয়া চলমান থাকা সত্ত্বেও বালু ভরাট ও সীমানা প্রাচীর নির্মাণের কারনে এলাকায় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংঙ্কা করছে এলাকাবাসী।

এ নিয়ে স্থানীয় ভোক্তভূগী মো. আব্দুর রউফ হাইকোর্টের আদেশ নামা দেখিয়ে জমি দখলে বাঁধা দিয়ে কোন সুরাহা না পেয়ে নিজে বাদী হয়ে মোঃ মোস্তফা কামাল ওরফে আল মোস্তফা (৫৫), তার ছোট ভাই ইকবাল হোসেন (৪৭), মোস্তফা কামালের কর্মচারী ইঞ্জিনিয়ার জহিরুল ইসলাম (৫২), সোহরাব হোসেন (৫৫) এর নামে সোনারগাঁ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

স্থানীয় ভোক্তভূগী মো. আব্দুর রউফ বলেন, ৩৫ শতাংশ কৃষি ও নাল জমির মালিকানা নিয়ে আদালতে মামলা বিচারপ্রক্রিয়া চলমান এবং হাইকোর্টের ৬ মাসের স্টে অর্ডার আছে, যার নোটিশ মোস্তফা কামালকে পাঠানো হয়েছে। যার নং ১০৯/২০২২। তারপরও হেরিটেজ পলিমার এন্ড ভেজিটেবলস লিমিটেডের মালিক মোস্তফা কামাল মহামান্য আদালতের আদেশ অমান্য করে আমার জমিদখল করে নিচ্ছে। তার ভূমিদস্যু হয়ে উঠার নেপথ্যে কারা কাজ করছে তাদেরকে বিচারের আওতায় আনার দাবি জানাই।

সোনারগাঁ থানার উপ-পরিদর্শক ওবায়দুর রহমান জানান, আল মোস্তফা গ্রুপ কর্তৃক জমি দখলের অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে সীমানা প্রাচীর নির্মাণের সত্যতা পেয়েছি। দ্রুত আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এ ব্যাপারে জমি দখল কারী আল মোস্তফাকে কল করলে তিনি কল না ধরে কেটে দেন।

এ ব্যাপারে সোনারগাঁ থানার ওসি হাফিজুর রহমানকে কল করলে তিনি কল ধরেন নি।  ওসিকে হোয়াটসঅ্যাপে খুদে কেসেজ পাঠানো হয়েছে যে, আপনার থানার এস আই  জমি দখলের সত্যতা পেয়েছে,  অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে নিয়েছেন কি?  তিনি মেসেজ পড়েছেন কিন্রু কোন কিছু বলেন নাই।

এ ব্যাপারে ভুক্তভোগীরা ও এলাকা বাসী জানান, যুবলীগ নেতা রফিকুল ইসলাম নান্নুর শেল্টারে আল মোস্তফা অনেয় জমি দখল করে নিচ্ছে।  শুধু এইটা নয় আরো অনেকের জমি দখল করে নিয়েছে। মেনি খালি নদীর দখল করেছে।  নান্নুর পোষা গুন্ডা আদম ব্যবসায়ী, বহু মামলার আসামী ভাটি বন্দরের নুরার ছেলে ওমর ফারুক মোস্তফার সাথে থেকে নান্নুর নির্দেশ মোতাবেক থানা প্রশাসন মেনেজ করে অসহায়দের জিম্মি করে অনেক জমি লিখে নিয়েছে বলে জানা যায়।