মুন্সীগঞ্জে র‌্যাবের সাথে বন্দুকযুদ্ধে দুই শীর্ষ সন্ত্রাসী নিহত অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার

409

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি: মুন্সীগঞ্জে র‌্যাবের সাথে বন্দুকযুদ্ধে দুই শীর্ষ সন্ত্রাসী নিহত অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার। মঙ্গলবার দুপুর সোয় ২ টায় সদর উপজলোর রামপালের মল্লালবাড়ী এলাকায় এই বন্দুক যুদ্ধের ঘটনা ঘটে। এতে চিহিৃত মাদক ব্যবসায়ী ও শীর্ষ সন্ত্রাসী খোরশেদ আলম (৩৮) (লেংরা খসরু)ও মো:সুমন (৩৫) (কানা সুমন) নামের দুই সন্ত্রাসী নিহত হয়। এসময় সন্ত্রাসীদের ছোড়া গুলিতে র‌্যাবের সিনিয়র ওয়ারেন্ট অফিসার মোকারম হোসেন ও ল্যান্স নায়ক শরাফত হোসেন গুরুতর আহত হলে তাদের ঢাকার সামরিক হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

র‌্যাব সুত্রে জানা গেছে, দীর্ঘ দিন ধরে লেংরা খসরু ও কানা সুমনকে গ্রেফতারে লক্ষে অভিযান চলছিলো। আজ মঙ্গলবার গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সিপাহী পাড়া এলাকা থেকে প্রথম কানা সুমনের পিছু নেয় র‌্যাব সদস্যরা। পরে কানা সুমন পাশ্ববর্তি গ্রাম বল্লালবাড়ী মসজিদের ওখানে গিয়ে লেংরা খসরুর সাথে মিলিত হয়েছে একটি সাদা রংয়ের প্রাইভেট গাড়িতে ডুকে পরে। এসময় র‌্যাব সদস্যরা তাদের গ্রেফতারে লক্ষে কাছে পৌছাতে চাইলে গাড়ীর ভিতরে থাকা সন্ত্রাসীরা র‌্যাব সদস্যদের উপর গুলি ছোড়ে এসময় র‌্যাব পাল্টা গুলি ছোড়লে বল্লালবাড়ী এলাকার সুরুজ মাদবরের ছেলে  খোরশেদ আলম (লেংরা খসরু) ও শহরের কোটগাঁও এলাকার আবুল কাশেমের ছেলে মো. সুমন (কানা সমুন) নিহত হয়। এসময় গুলিবিদ্ধসহ ৫ র‌্যাব সদস্য আহত হয়। ঘটনাস্থল থেকে দুটি বিদেশি পিস্তল,৫ রাউন গুলি ও ৩৯ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে র‌্যাবের পুলিশ সুপার এনায়েত হোসেন মান্না, বলেন, আমরা গোপন সংবাদে খবর পাই কানা সুমন সিপাহীপাড়া বাজারে অবস্থান করছে ।পরে আমাদের টহল টিমটি সুমনের পিছু নেয়। পরে কানা সুমন বল্লালবাড়ী মসজিদের সামনে রাখা থাকা লেংরা খসুরর সাথে মিলিতি হয়ে এই গাড়ীতে ডুকে পরে। এসময় আমরা সেখানে উপস্থিত হলে তারা আমাদের উপরে গুলি ছোড়ে । পরে আমরাও পাল্টা গুলি ছোড়লে দুই সন্ত্রাসী নিহত হয়। এসময় তাদের কাছ থেকে দুটি বিদেশি পিস্তল,৫ রাউন গুলি ও ৩৯ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে।