বন্দরে ত্রিবেনী খালটি তার সকল ঐতিহ্য হারিয়ে এখন অবৈধ দখলে

335

বন্দর প্রতিনিধিঃ বন্দরের ত্রিবেনী খালটি তার সকল ঐতিহ্য হারিয়ে এখন অবৈধ দখলে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নদী ও খাল-বিলের পানির অবাধ প্রবাহ নিশ্চিত করতে পানির প্রবাহে বাধা সৃষ্টি কারী সব ধরনের স্থাপনা অবিলম্বে ভেঙে ফেলার নির্দেশ দিলেও উচ্ছেদের উদ্যোগ নেই প্রশাসনের।
শীতলক্ষ্যা নদীর শাখা ত্রীবেনি খালটি বন্দর উপজেলার সোনাকান্দা দিয়ে মিরকুন্ডি সংযোগ হয়ে ব্রম্মপুত্র নদীতে গিয়ে মিশেছে। এক সময় এই খাল দিয়ে দু-ঘন্টি পাল তুলে হাজার মনের নৌকা চলাচল করত। এখন দুইপাশে অবৈধ দখলের কারণে নৌকা চলা তো দূরের কথা পানি প্রবাহ হতে পারেনা।
বুধবার সকালে সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, শীতলক্ষ্যা নদী থেকে সোনাকান্দা ও রুপালী আবাসিক এলাকার মধ্য দিয়ে দক্ষিণ কলাবাগ রস্তমপুর, নয়ান গড়, মীর কুন্ডি হয়ে ব্রম্মপুত্র নদীর সাথে সংযোগ হয়েছে। খালের দুপাশে অবৈধ স্থাপন তৈরি করায় খালটি ড্রেনে রুপান্তরিত হয়েছে।
এ ব্যপারে ওই এলাকার প্রবীণ করিম মিয়া সাংবাদিকদের বলেন, তৎকালীন সময়ে বিভিন্ন পণ্যবাহী নৌকা এই খাল দিয়ে বিভিন্ন জেলায় যাতায়াত করতো। দার বেয়ে যাওয়া মাঝিমাল্লারা নৌকা, পানির কলকলানি শব্দ আজ আর শোনা যায়না। খালের দুইপাশ দখল করে অবৈধ স্থাপনা তৈরি করায় ত্রীবেনী খাল এখন মৃত।
বন্দর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পিন্টু ব্যাপারী বলেন, আমি আশা করি ত্রীবেনী খালটি আবার পুরাতন রুপ ফিরে পাবে। সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে থেকে খাল খননের অনুমোদন হয়ে গেছে। আমরা খুব তারাতাড়ি কাজ শুরু করবো। তখন অবৈধ স্থাপন ভেঙ্গে দেওয়া হবে।